‘রাশিয়ার ওপর নতুন নিষেধাজ্ঞা ইউরোপ বিষয়ে মার্কিন হস্তক্ষেপের শামিল’

মার্কিন সিনেটের পক্ষ থেকে রাশিয়ার ওপর নতুন করে যে নিষেধাজ্ঞার অনুমোদন দেয়া হয়েছে তার নিন্দা জানিয়েছে জার্মানি এবং অস্ট্রিয়া। মার্কিন আইনপ্রণেতাদের আনা নিষেধাজ্ঞার বিল ইউরোপের বিষয়গুলোতে মার্কিন হস্তক্ষেপের শামিল-এ কথা উল্লেখ করে দেশ দু’টি যে বক্তব্য দিয়েছে তা নজীরবিহীন বলে মনে করা হচ্ছে।

জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী সিগমার গেব্রিয়েল এবং অস্ট্রিয়ান ফেডারেল চ্যান্সেলর ক্রিস্টিয়ান কেরন এক যৌথ বিবৃতিতে বলেছেন, ‘রাশিয়ার জ্বালানি খাতকে টার্গেট করে আরোপিত নিষেধাজ্ঞা জার্মানি, অস্ট্রিয়া এবং ইউরোপের অন্যান দেশের জন্য হুমকি হলে তা মেনে নেয়া হবে না। মার্কিন সিনেটের প্রস্তাবিত নিষেধাজ্ঞাকে আন্তর্জাতিক আইন ও নীতিমালার পরিপন্থি হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন তারা। গতকাল (বৃহস্পতিবার) তাদের এ যৌথ বিবৃতি সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়।

নিষেধাজ্ঞার কারণে ইউরোপে জ্বালানী সরবরাহ ব্যবস্থার উন্নয়নে নিযুক্ত কোম্পানিগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হলে ইউরোপীয় ইউনিয়ন বা ইইউ’র সদস্য রাষ্ট্রগুলো মেনে নেবে না বলে যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়েছে। এছাড়া, এ ধরণের বর্হিদেশীয় নিষেধাজ্ঞা আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘন বলেও দাবি করেন তারা।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়েছে, মার্কিন সিনেটে রাশিয়ার বিরুদ্ধে যে নিষেধাজ্ঞার বিলে অনুমোদন দেয়া হয়েছে তা রাজনৈতিক এবং মানবিক বিবেচনায় হয় নি বরং এতে মার্কিন অর্থনীতির স্বার্থকে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে।

সেখানে বলা হয়েছে, মার্কিন ঘনীভূত গ্যাস ইউরোপে বিক্রি করার পাশাপাশি ইউরোপীয়ান মার্কেটে তৎপর রুশ কোম্পানিগুলোর ওপর চাপ বাড়াতে এ নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে। মার্কিন গ্যাস এবং জ্বালানি খাতে বিপুল পরিমাণ কর্মসংস্থান সৃষ্টি করাই এই নিষেধাজ্ঞার প্রধান লক্ষ্য বলে বিবৃতিতে দাবি করা হয়েছে।

You Might Also Like