court

আমেরিকার বিরুদ্ধে আইনি লড়াইয়ে ইরান এগিয়ে; এ পর্যন্ত ১০৮ মামলা দায়ের

আন্তর্জাতিক আদালতে এ পর্যন্ত আমেরিকার বিরুদ্ধে ১০৮টি মামলা দায়ের করেছে ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরান। এ পর্যন্ত আদালত ইরানকে আট হাজার ৪০০ কোটি ডলার ক্ষতিপূরণ দিতে আমেরিকার প্রতি নির্দেশ দিয়েছে। একইসঙ্গে আমেরিকার দায়েরকৃত মামলায় পাঁচ হাজার ৪০০ কোটি ডলার ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ জারি করেছে আদালত।

এসব তথ্য জানিয়েছেন ইরানের জাতীয় নিরাপত্তা ও পররাষ্ট্র নীতি বিষয়ক কমিশনের মুখপাত্র হোসেন তাকাভি হোসেইনি। তিনি বলেন, আইনি লড়াইয়ে আমেরিকার চেয়ে এগিয়ে রয়েছে ইরান।

তিনি আরও বলেন, আমেরিকার বিরুদ্ধে ইরানের দায়েরকৃত ১০৮টি মামলার মধ্যে ৮০টি হলো ইরানের বিরুদ্ধে রাসায়নিক বোমা হামলা সংক্রান্ত এবং অন্য মামলাগুলো সন্ত্রাসী হামলার বিষয়ে।

হোসেইনি আরও বলেন, ইরানে ইসলামি বিপ্লব বিজয় লাভের পর আমেরিকা ইরাকের সাদ্দাম সরকারকে রাসায়নিক অস্ত্র সরবরাহের মাধ্যমে এবং সন্ত্রাসী লেলিয়ে দিয়ে বহু ইরানিকে হত্যা করেছে। এসব হত্যাকাণ্ডের জন্য মার্কিন কর্মকর্তাদের বিচার করতে হবে।

নিজেদের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য ইরান সরকার আন্তর্জাতিক আদালতে আমেরিকার বিরুদ্ধে মামলাগুলো পরিচালনা করছে বলে জানান তিনি।

america

আমেরিকায় দুর্বৃত্তদের গুলিতে বাংলাদেশি নিহত, গ্রেফতার নেই

আমেরিকার লস অ্যাঞ্জেলেস সিটির নর্থ হলিউডে দুর্বৃত্তের গুলিতে আবুল কালাম রহিম (৫৫) নামে এক বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন। এ নিয়ে গত দেড় মাসে দেশটিতে চারজন বাংলাদেশি প্রাণ হারালেন।

লসএঞ্জেলেস পুলিশ জানিয়েছে, রোববার ভোররাতে বেলাইয়ার এভিনিউর কাছে শারমেন ওয়ের উপর অবস্থিত ‘এ এ্যান্ড ডি লিকার মার্ট’-এ হত্যাকাণ্ডের শিকার হন আবুল কালাম রহিম। তিনি ওই দোকানে কাজ করতেন। এটি ডাকাতির ঘটনা বলে সন্দেহ করা হলেও ক্যাশ বাক্স থেকে কোনো অর্থ লুট হয়নি বলে জানা গেছে।

দোকানের সিসি ক‌্যামেরার ছবি পরীক্ষা করে ঘাতকদের শণাক্ত করা হলেও এখন পর্যন্ত তাদের গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। দুই হামলাকারীর মধ্যে একজন নারী বলে পুলিশ জানিয়েছে।

তিন মেয়ে ও এক ছেলের জনক আবুল কালাম রহিম গত ১৬ বছর ধরে আমেরিকায় বসবাস করে আসছিলেন। তার দুই মেয়ে বাংলাদেশে থাকেন। তার বাড়ি ঢাকার খিলগাঁওয়ে।

ময়নাতদন্ত শেষে তার লাশ ঢাকায় পাঠানো হবে বলে পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

এদিকে, আবুল কালাম রহিমের মৃত‌্যুতে লস অ্যাঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিদের মধ‌্যে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। তার মৃত‌্যুতে উদ্বেগ জানিয়ে ওই এলাকার বাসিন্দা মমিন বাচ্চু বলেন, এখন থেকে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে। পুলিশি তৎপরতাও বাড়াতে হবে।

এর আগে গত ১৩ আগস্ট নিউ ইয়র্কে বাংলাদেশি ইমাম মাওলানা আলাউদ্দিন আকঞ্জি (৫৫) এবং তার সহযোগী তারা মিয়াকে (৬৪) গুলি চালিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এরপর গত ১ সেপ্টেম্বর ছুরিকাঘাতে হত‌্যা করা হয় নাজমা খানম ঝর্না নামে এক নারীকে।

oman

ওমানের ভয়ে ভীত নয় বাংলাদেশ

অনূর্ধ্ব-১৮ এশিয়া কাপ হকির এবারের আসরের আয়োজক বাংলাদেশ। ঘরের মাঠের এই আয়োজনের ফাইনালে খেলা বাংলাদেশের লক্ষ্য। সাতটি দল দুই গ্রুপে বিভক্ত হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে অনূর্ধ্ব-১৮ এশিয়া কাপ হকিতে।

ওমান ও ভারতের সঙ্গে ‘এ’ গ্রুপে রয়েছে বাংলাদেশ। ‘বি’ গ্রুপে আছে পাকিস্তান, চীন, হংকং ও চাইনিজ তাইপে।

‘এ’ গ্রুপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে শক্তিশালী ভারতকে হারিয়ে সেমিফাইনালে এক প্রকার নিশ্চিত করে রেখেছে স্বাগতিকরা। ‘এ’ গ্রুপ থেকে চ্যাম্পিয়ন হয়ে সেমিফাইনালে যাওয়ার লক্ষ্যে মঙ্গলবার বিকেল ৩টায় ওমানের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। এই ওমানের বিপক্ষে বাংলাদেশের রেকর্ড অতোটা উল্লেখযোগ্য নয়।

তারপরও ওমান অনূর্ধ্ব-১৮ দলের বিপক্ষে ভালো করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৮ দলের অধিনায়ক রোমান সরকার। পাশাপাশি তিনি এও জানিয়েছেন যে ওমানের ভয়ে ভীত নয় তারা, ‘আমরা ওমানের ভয়ে ভীত নই। তাদের বিপক্ষের ম্যাচ নিয়ে আমরা আত্মবিশ্বাসী। ওমানের বিপক্ষে আমরা আমাদের সেরা নৈপুণ্য প্রদর্শনের চেষ্টা করব। আমরা টিমওয়ার্কে বিশ্বাসী এবং এটি দিয়েই ম্যাচ জিততে চাই।’

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ তাদের প্রথম ম্যাচে ভারতকে ৫-৪ গোলে হারায়। পরের ম্যাচে ভারত ১১-০ গোলে হারায় ওমানকে। মঙ্গলবার ওমানের বিপক্ষে জয় পেলে তো কথাই নেই, ড্র করলেও সেমিফাইনালে পৌঁছে যাবে বাংলাদেশ।

গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে সেমিফাইনালে গেলে বাংলাদেশ প্রতিপক্ষ হিসেবে পেতে পারে চীন অথবা চাইনিজ তাইপেকে। আর ওমানের কাছে হেরে গ্রুপ রানার আপ হয়ে সেমিফাইনালে গেলে প্রতিপক্ষ হিসেবে পেতে পারে পাকিস্তানকে।

ja

মাশরাফির বোলিং, অধিনায়কত্বে মুগ্ধ ওয়ালশ

ওয়েস্ট ইন্ডিজের স্বর্ণালী সময়ের সাক্ষী কোর্টনি ওয়ালশ। অনেকটা সময় ওয়েস্ট ইন্ডিজকে সার্ভিস দিয়েছেন ডানহাতি এ পেসার।

এখনও ওয়েস্ট ইন্ডিজের টেস্ট ও ওয়ানডের শীর্ষ উইকেট শিকারী বোলার ওয়ালশ। প্রাক্তন এ ক্রিকেটারের বর্তমান পরিচয় তিনি বাংলাদেশ জাতীয় দলের পেস বোলিং কোচ। রোববার ছিল তার প্রথম অ্যাসাইনমেন্ট। জয় দিয়ে কাজ শুরু করতে পারায় ওয়ালশ খুশি। তবে বিশেষ খুশি মাশরাফি বিন মু্র্তজাকে নিয়ে।

মাশরাফির বোলিং ও অধিনায়কত্ব ওয়ালশকে মুগ্ধ করেছে। দলকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে জয়ের স্বাদ দেওয়ায় টাইগার দলপতির প্রশংসা করেছেন ওয়ালশ। পাশাপাশি সাকিবের ৪৭তম ওভারকে ওয়ালশ বলছেন ম্যাচের টার্নিং পয়েন্ট। সব মিলিয়ে ওয়ালশ আফগানিস্তানের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচটি ড্রেসিং রুমে বসে বেশ উপভোগ করেছেন। রোববার ওয়ালশ সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন।

মাশরাফিকে নিয়ে ওয়ালশ বলেন, ‘অধিনায়ক দলকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছে। নিজ কাঁধে দায়িত্ব নিয়েছে অনেক সময়। এটা সত্যিই অসাধারণ। বোলিংয়ে অন্যদের থেকে ভালো করেছে। সত্যিই তার পারফরম্যান্সে মুগ্ধ।’

বাকি দুই পেসার ‍রুবেল ও তাসকিনকে নিয়ে ওয়ালশ বলেছেন, ‘দুই পেসার ভালো করেছে। তাসকিন বাড়তি নজর কেড়েছে। আইসিসি থেকে বৈধতা পাওয়ার পর তার প্রথম ম্যাচ ছিল। চাপে ছিল ও। তারপরও সে ভালো করেছে। শুরুতে অনেক কিছুর চেষ্টায় উলট-পালট হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু পরবর্তীতে সে ফিরে এসেছে। এজন্য তাকে ক্রেডিট দিতেই হবে।’

ম্যাচটি উপভোগ করেছেন উল্লেখ করে ওয়ালশ বলেন, ‘আমরা বার বার মাঠে বার্তা পাঠাচ্ছিলাম। তাদেরকে বলছিল দুটা-তিনটা ওভার ম্যাচের পার্থক্য গড়ে দিবে। ওরা চাপে পরে উইকেট হারাবে। আমরা হয়ত ফিল্ডিংয়ে নিখুঁত ছিলাম না। কিন্তু যখন আমরা উইকেট নেওয়া শুরু করলাম তখন সব কিছুই আমাদের পক্ষে চলে আসতে শুরু করে। বলতে হবে এক কথায় ওটা ছিল টিম পারফরম্যান্স। ম্যাচটি দারুণ উপভোগ করেছি।’

সাকিবের ৪৭তম ওভারে নিয়ে ওয়ালশ বলেন, ‘শেষ দিকে সাকিব, তাসকিন অসাধারণ বোলিং করেছে। কিন্তু সাকিব আমাদের প্লাটফর্ম তৈরী করে দিয়েছে। ম্যাচ পরিবর্তনের ওভারটা সেই করেছিল। তার চাপের কারণে রান রেট বেড়ে যায়। ওরা আরও চাপে পরে যায়।’

qqw

৬০ দেশে মুক্তি পাচ্ছে ধোনির বায়োপিক

ভারতের ওয়ানডে ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির বায়োপিক ‘এমএস ধোনি : দ্য আনটোল্ড স্টোরি।

বিশ্বের ৬০টি দেশে প্রায় সাড়ে চার হাজার পর্দায় মুক্তি পেতে যাচ্ছে সিনেমাটি।

এ প্রসঙ্গে ফক্স স্টার স্টুডিওর সিইও এবং এ সিনেমার প্রযোজক বিজয় সিং এক বিবৃতিতে বলেন, ‘এমএস ধোনি : দ্য আনটোল্ড স্টোরি যে কোনো ভারতীয় সিনেমা হিসেবে ভারতে এবং আন্তর্জাতিকভাবে সবচেয়ে বড় পরিসরে মুক্তি পেতে যাচ্ছে। এটি তামিল এবং তেলেগু ভাষায় ডাবিং করা কোনো হিন্দি সিনেমা হিসেবেও সবচেয়ে বড় পরিসরে মুক্তি পাচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, ‘বিশ্বজুড়ে সিনেমাটি নিয়ে অভূতপূর্ব চাহিদা এবং সকল ভাষায় সিনেমাটি সময়মতো পৌঁছানোর জন্য পাঞ্জাবী এবং মারাঠি ভাষায় এটি মুক্তি দেওয়া হচ্ছে না।’

সিনেমাটির অন্য আরেক প্রযোজক ইন্সপায়ার্ড এন্টারটেইনমেন্টের অরুন পান্ডে বলেন, ‘আমরা অত্যান্ত আনন্দের সঙ্গে জানাচ্ছি, সিনেমাটি ভারতীয় সিনেমা হিসেবে সবচেয়ে বড় পরিসরে মুক্তি পেতে যাচ্ছে এবং বিশ্বের ৬০ টি দেশে এটি মুক্তি দেওয়া হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘এই প্রথম কোনো সিনেমা এত বড় পরিসরে মুক্তি দেওয়া হচ্ছে, সুতরাং ডাবিং করতে কত সময় লেগেছে তার হিসেব করা হয়নি।’

মহেন্দ্র সিং ধোনির জীবনের অজানা অধ্যায় নিয়ে বলিউড পরিচালক নীরাজ পান্ডে নির্মাণ করেছেন এম.এস ধোনি : দ্য আনটোল্ড স্টোরি শিরোনামের সিনেমাটি।

এতে দেখা যাবে, ভারতীয় রেলে চাকরি করা থেকে শুরু করে, ভারতীয় ক্রিকেট টিমের অধিনায়ক হয়ে ওঠা, প্রেম থেকে শুরু করে ধোনির জীবনের নানা উত্থান-পতনের বিভিন্ন মুহূর্তকে।

সিনেমায় ধোনি চরিত্রকে অসাধারণভাবে ফুটিয়ে তোলার দায়িত্ব পালন করেছেন অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত। এছাড়া সিনেমায় ধোনির বোনের চরিত্রে অভিনয় করেছেন অভিনেত্রী ভূমিকা চাওলা এবং স্ত্রী সাক্ষীর চরিত্রে অভিনয় করেছেন কিয়ারা আদভানি। অনুপম খেরকে দেখা যাবে ধোনির বাবার ভূমিকায়। ফক্স স্টার স্টুডিওস এবং ইন্সপায়ার্ড এন্টারটেইনমেন্টের প্রযোজনায় সিনেমাটি মুক্তি পাবে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর।

4e

মালয়েশিয়ায় সৈকত থেকে বাংলাদেশির দগ্ধ লাশ উদ্ধার

মালয়েশিয়ায় সমুদ্র সৈকত থেকে এক বাংলাদেশির দগ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। স্থানীয় সময় রোববার রাতে লরং পান্তাই কেলানাং সৈকত থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

কুয়ালা লাঙ্গাত জেলা পুলিশ প্রধান জাইলান তাসির জানিয়েছেন, নিহত ওই বাংলাদেশির নাম সৈয়দ আলী। তার বয়স আনুমানিক ৪০ বছর। তার পাসপোর্ট নম্বর বিসি ০২১৪৫৩৪।

পুলিশের এই কর্মকর্তা জানান, রাত ১১ টা ৪৫ মিনিটের দিকে সৈকতে লাশটির খোঁজ পাওয়া যায়। দুই প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, লাশটি যেখানে পড়েছিল সেখানে তারা আগুন জ্বলতে দেখেছেন।

তাসির জানান, মৃতদেহের প্রায় শতভাগ পুড়ে গেছে। মৃতব্যক্তির পিঠে ও মাথায় আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। ধারণা করা হচ্ছে, ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাকে আঘাত করা হয়েছিল।

তিনি বলেন, ‘হত্যার প্রমাণ নিশ্চিহ্ন করতে অন্য কোথাও ওই ব্যক্তিকে খুন করে সৈকতে এনে মৃতদেহে অগ্নিসংযোগ করা হয়ে থাকতে পারে বলে আমরা ধারণা করছি।’

তিনি জানান, মৃতদেহের প্রতিটি আঙুলে আংটি ছিল। তার পাসপোর্টটি মানিব্যাগ থেকে পাওয়া গেছে। শার্টের পকেটে ২০ ও ১০ রিঙ্গিতের দুটি নোট পাওয়া গেছে। ঘটনাস্থল থেকে ক্যাস্ট্রল ইঞ্জিন তেলের একটি বোতলও উদ্ধার করা হয়েছে।

q

ভারতে জেএমবির ৬ জঙ্গি গ্রেপ্তার

ভারতে নিষিদ্ধঘোষিত জামাতুল মুজাহিদিন বাংলাদেশের (জেএমবি) ছয় জঙ্গিকে গ্রেপ্তার করেছে সে দেশের পুলিশ।

এদের মধ্যে তিনজন বাংলাদেশি ও তিনজন ভারতীয়। আসাম ও পশ্চিমবঙ্গের একাধিক স্থান থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে সোমবার জানিয়েছে কলকাতা পুলিশের স্পেশ্যাল টাস্ক ফোর্স (এসটিএফ)।

এসটিএফ প্রধান বিশাল গর্গ জানিয়েছেন, ছয় জনের মধ্যে পাঁচজনের নাম ইতিমধ্যে জাতীয় তদন্তকারী সংস্থার (এএনআই) দেওয়া খাগড়াগড় মামলার চার্জশিটে ছিল।

গ্রেফতাকরকৃতরা হলেন- আনোয়ার হোসেন ফারুক ওরফে ইনাম ওরফে কালুভাই, জাহিদুল শেখ ওরফে জাফর ওরফে জাবিরুল, মোহাম্মদ রফিক ওরফে রুবেল ওরফে পিছি, মাওলানা ইউসুফ ওরফে বক্কর ওরফে আবু খেতাব, শাহিদুল ওরফে সূর্য ওরফে শামিম এবং আব্দুল কালাম ওরফে কলিম।

লালবাজারে সাংবাদিক সম্মেলনে গ্রেফতারকৃতদের সোমবার হাজির করে এসটিএফ। সংস্থার প্রধান জানান, দু’দিন আগে আসামের কাছাড় থেকে একটা জাল নোটের মামলায় কলকাতা এসটিএফ জাবিরুলকে গ্রেপ্তার করে। পরে তাকে কলকাতায় নিয়ে আসা হয়।

জাবিরুলকে লাগাতার জেরা করে জানা যায়, সে জেএমবির সঙ্গে যুক্ত। শুধু তাই নয়, তার কাছ থেকে বেশ কয়েকজন জেএমবি জঙ্গির খবর জানতে পারে এসটিএফ। সেই সূত্র ধরে রোববার নিউ কোচবিহার স্টেশন থেকে কালামকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

পুলিশের দাবি, কালাম বাংলাদেশ থেকে আসাম হয়ে পশ্চিমবঙ্গে ঢোকার চেষ্টায় ছিল। বাংলাদেশ থেকে তাকে কাছাড়ে সংগঠনের দায়িত্ব সামলাতে পাঠানো হয়েছিল।

এরপর উত্তর ২৪ পরগনার বনগাঁ-বাগদা রোডের উপর বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী একটি জায়গা থেকে ইনাম এবং রফিককে গ্রেপ্তার করা হয়। ইনাম পশ্চিমবঙ্গে জেএমবি ইউনিটের প্রধান। তার বাড়ি বাংলাদেশের জামালপুরে। রফিকের বাড়িও ওই একই জায়গায়। সে ইম্প্রোভাইজ্ড এক্সপ্লোসিভ ডিভাইস (আইইডি) তৈরিতে পারদর্শী। বাংলাদেশ থেকে পশ্চিমবঙ্গে যাওয়া জেএমবি সদস্যদের থাকার ব্যবস্থা করে দিত রফিক।

এসটিএফ প্রধান জানিয়েছেন, এর পরে ওই জেলারই বসিরহাটের নতুন বাজার এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয় ইউসুফ এবং শাহিদুলকে। ইউসুফের বাড়ি বর্ধমান জেলার মঙ্গলকোটে। তার সন্ধান দিতে পারলে ১০ লাখ টাকা পুরস্কারের কথা ঘোষণা করেছিল এনআইএ। এসটিএফের দাবি, শাহিদুল উত্তর-পূর্ব ভারতের প্রধান হিসেবে কাজ করত। এ দেশে বিভিন্ন নাশকতামূলক ছকের মূল পরিকল্পকও সে। তার বাড়ি আসামের বরপেটায়।

গ্রেপ্তারকৃতদের কাছ থেকে পাওয়া গিয়েছে প্রচুর বিস্ফোরক। সঙ্গে পাওয়া গেছে নাশকতার সঙ্গে সম্পর্কিত বিভিন্ন কাগজপত্র, বেশ কয়েকটি মোবাইল ফোন, প্রায় দু’কেজি সাদা বিস্ফোরক পাউডার, বিয়ারিং-বল, তার কাটা যায় এমন জিনিস এবং ব্যাটারি।

রফিকের কাছে কেমিক্যাল কমপাউন্ডের একটি বই পাওয়া গিয়েছে। ইউসুফ ও ইনামের কাছে পাওয়া গিয়েছে বিস্ফোরক। ইনামের কাছে একটা সাংগঠনিক ছকও পাওয়া গিয়েছে। রফিকের কাছে বাংলাদেশি ট্রেড লাইসেন্সও মিলেছে।

এসটিএফের দাবি, গ্রেপ্তারকৃতরা প্রত্যেকেই খাগড়াগড়-কাণ্ডের পরে উত্তর-পূর্ব এবং দক্ষিণ ভারতে পালিয়ে গিয়েছিল।

জেরার মুখে গ্রেপ্তারকৃতরা স্বীকার করেছে, তারা একটি বড়সড় নাশকতার ছক কষেছিল। তবে, সেই নাশকতা কলকাতায় করার নাকি কোনো উদ্দেশ্য তাদের ছিল না। দক্ষিণ বা উত্তর-পূর্ব ভারতের কোনও জায়গাকে তারা বেছে নিত বলে জানিয়েছে তারা।

এসটিএফ প্রধান জানিয়েছেন, গ্রেপ্তারকৃতরা সাংকেতিক ভাযায় নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ রাখত। সেই ভাষার অর্থ খুঁজে বার করে ওদের ধরা হয়েছে।

hillary

ফিলিস্তিন ইস্যুতে জাতিসংঘের দেয়া সমাধান মানেন না হিলারি

ইসরাইল-ফিলিস্তিনি সংঘাত অবসানের লক্ষ্যে জাতিসংঘের মধ্যস্থতায় যে সমাধান দেয়া হয়েছে মার্কিন ডেমোক্রেট দলের প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিলারি ক্লিনটন এর বিরোধীতা করবেন। ইসরাইলি যুদ্ধবাজ প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর সঙ্গে এক বৈঠকে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মার্কিন সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটন এবং নেতানিয়াহু নিউইয়র্কের ম্যানহাটনের একটি হোটেলে গতকাল (রোববার) বিকেলে বৈঠকে মিলিত হন।এর কয়েক ঘন্টা পর প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু রিপাবলিকান দলের প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গেও বৈঠক করেন। ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহুর সঙ্গে বৈঠকে তেল আবিবকে অবৈধ করার যেকোন প্রচেষ্টার বিরুদ্ধে সব কিছুই করা হবে বলে প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন তিনি।

এছাড়া, বৈঠকে হিলারি ক্লিন্টন চলমান ফিলিস্তিন সংঘাত অবসানে আবারো দ্বি-রাষ্ট্র সমাধান নীতির প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন। তবে বাইরের কোনো পক্ষ থেকে এই ইস্যুতে কোনো সমাধান চাপিয়ে দেয়া হলে তিনি এর বিরোধীতা করবেন। এমনকি জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের মাধ্যমে দেয়া কোনো সমাধানও তিনি মানবেন না। হিলারি ক্লিনটনের নির্বাচনী প্রচার শিবির থেকে এক বিবৃতির মাধ্যমে এ কথা বলা হয়েছে।

bd

‘টাইগাররা টাইগারদের মতো খেলবে’

দীর্ঘ বিরতির পর ওয়ানডে খেলতে নেমে জয় দিয়ে শুরু করেছে বাংলাদেশ।

তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে আফগানিস্তানকে ৭ রানে হারিয়েছে বাংলাদেশ। কিন্তু ক্রিকেটের নব্য পরাশক্তি বাংলাদেশ দাপট দেখিয়ে আফগানিস্তানের বিপক্ষে খেলতে পারেনি।

পাকিস্তান, ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকাকে গত বছর প্রভাব বিস্তার করে হারিয়েছিল বাংলাদেশ। কিন্তু আফগানিস্তানের বিপক্ষে পুরনো আমেজ নিয়ে আসতে পারেনি মাশরাফির দল।

দলের ম্যানেজার ও জাতীয় দলের প্রাক্তন অধিনায়ক খালেদ মাহমুদ সুজন মনে করেন দীর্ঘ বিরতির পর প্রথম ম্যাচ খেলতে নামার কারণে পুরনো আমেজে খেলতে পারেনি টাইগারারা।

সোমবার গণমাধ্যমের মুখোমুখি হন খালেদ মাহমুদ। পাঠকদের জন্য চুম্বক অংশ দেওয়া হলো:

প্রশ্ন: গতকালের ম্যাচ নিয়ে আপনার মূল্যায়ন জানতে চাচ্ছি?
খালেদ মাহমুদ সুজন: প্রথম ম্যাচে আমরা বোলিং, ব্যাটিং বা ফিল্ডিংয়ে নিজেদের একটু গুটিয়ে রেখেছিলাম। এটা হয়তো অনেকদিন পর ম্যাচ খেলার কারণে হয়েছে। তবে আমরা ভাগ্যবান যে আমরা ঘুরে দাঁড়িয়ে ম্যাচটা জিততে পেরেছি। আমার মনে হয় এ জয় আমাদের দারুণভাবে উজ্জীবিত করবে। গত বছর আমরা যেই ক্রিকেট খেলেছি এ জয় আমাদেরকে সেখানে ফিরে যেতে সাহায্য করবে।

প্রশ্ন: ঘরোয়া ক্রিকেট খেলোয়াড়রা ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ খেলল। সেখানে অনেক ম্যাচই খেলেছে। আন্তর্জাতিক ম্যাচের পরিবেশ ভিন্ন হওয়ার কারণেই কি গুটিয়ে ছিল?
খালেদ মাহমুদ সুজন: আন্তর্জাতিক ম্যাচ একটা আলাদা ম্যাচ, আপনি যতই ঘরোয়া ক্রিকেট খেলেন কিংবা অনুশীলন ম্যাচ খেলেন, আন্তর্জাতিক ম্যাচের আবহাওয়া তৈরি করতে পারবেন না।

প্রশ্ন: সৌম্য সরকারের ব্যাটিং নিয়ে কি বলবেন?
খালেদ মাহমুদ সুজন : ছোট বেলা থেকে দেখেছি, ‘ক্লাস ইজ পার্মানেন্ট, ফর্ম ইজ টেম্পোরারি।’ আমার মনে হয় সৌম্য একটা ক্লাস ব্যাটসম্যান। একটি ইনিংসের দরকার, ও তাতেই ঘুরে দাঁড়াবে। ও ইতোমধ্যেই প্রমাণ করেছে ও একজন ক্লাস ব্যাটসম্যান। আমরা ওকে নিয়ে চিন্তিত না। আমিসহ কোচিং স্টাফের সবাই বলেছে একটা ভালো ইনিংস খেললেই ও আবার ফিরে আসবে।

প্রশ্ন: তাসকিন ও রুবেলের বোলি.. শুরুতে বাজে বল করছিল?
খালেদ মাহমুদ সুজন: তাসকিন ও রুবেল অনেক দিন পর এসেছে। প্রথম দিকে ভালো করতে পারেনি বলে হয়তো মনে হয়েছে। ভালো করলে বলা হতো না। তবে আশার কথা দলের প্রয়োজনীয় সময়ে তারা খুব ভালো বল করেছে। তারা পরিকল্পনা অনুযায়ী বল করেছে এটা খুব ভালো। ঐ যে বললাম রুবেল অনেক দিন পর ফিরে এসেছে, তাসকিনের একটা উৎকণ্ঠা ছিল। ওরা এসব কাটিয়ে কালকের প্রথম ম্যাচে খেলেছে, আমার মনে হয় পরের ম্যাচে এমন কোন সমস্যা থাকবে না।

প্রশ্ন: ব্যাটিংয়ে আরও বেশি রান হওয়া উচিত ছিল না?
খালেদ মাহমুদ সুজন: আমার মনে হয় আরও বেশি হতে পারতো, কিন্তু উইকেট পরে যাওয়ায় তা করতে পারিনি। তবে এটা ক্রিকেটে হয়েই থাকে। একটু তাড়া করতে গিয়ে উইকেট পরে গেলে এমন হয়, সাকিব পুরোটা খেলতে পারলে আরও বেশি হতো, সেটা হয়নি। সবচেয়ে বড় কথা আপনি যে রান করবেন সেটাই সহজ করে জিততে পারাই বড় কথা।

প্রশ্ন: আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার অভাবের কারণেই কি এটা হয়েছে?
খালেদ মাহমুদ সুজন: আমরা তো সাড়ে তিন’শ করতে চাই! তিন’শ বা যত রান বেশি করতে পারব তত আমাদের বোলারদের জন্য ভালো। অনুশীলনটার অভাব ছিল, আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার অভাব ছিল; এ কারণে প্রথম ম্যাচে হয়নি। পরশুর ম্যাচে দেখতে পারব ইনশাল্লাহ।

প্রশ্ন: ছেলেদের জন্য এ মুহুর্তে আপনার উপদেশ কি থাকবে?
খালেদ মাহমুদ সুজন: ভয় ডরহীন ক্রিকেট খেলতে হবে। দশ মাস আগে আমরা যেভাবে ক্রিকেট খেলেছি সেভাবে খেলতে হবে। সবই ঠিক ছিল তবে সামান্য ভয় হয়তো কাজ করেছিল, সেটা আমি চাইনা। আমরা চাই ভয় ছাড়া ক্রিকেট। টাইগাররা টাইগারদের মতো খেলবে।

sabbir

প্রথম ম্যাচে সাব্বিরের জরিমানা

আইসিসি’র আচরণ বিধি ভঙ্গের অপরাধে জরিমানার শিকার হয়েছেন বাংলাদেশি ক্রিকেটার সাব্বির রহমান। আফগানিস্তানের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে আম্পায়ারের সঙ্গে অসদাচরণের জন্য তাকে ম্যাচ ফি’র ৩০ শতাংশ জরিমানা করেছে বিশ্ব ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা আইসিসি।

রোববার আফগানিস্তানের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডে ম্যাচে ৭ রানে জয় পায় বাংলাদেশ। ওই ম্যাচে আফগানদের রান তাড়া করার সময় পানি পানের বিরতিতে ম্যাচ আম্পায়ার শরফুদৌলার দেওয়া এলবিডব্লিউর ব্যাপারে প্রশ্ন তোলেন সাব্বির। আইসিসি এক বিবৃতিতে আরও জানায়, তিনি আম্পায়ারের সঙ্গে অসঙ্গত মন্তব্যও করেন। এমন আচরণের জন্য আইসিসির ২.১.৪ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী সাব্বিরকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়।

পরে অবশ্য ম্যাচ রেফারি রিচি রিচার্ডসনের কাছে সাব্বির তার দোষ স্বীকার করে নিয়েছেন। তাই আনুষ্ঠানিক ভাবে কোনো শুনানির প্রয়োজন হয়নি। এ ধরনের একটি অথবা দুটি অপরাধের জন্য কোনো ক্রিকেটারকে ম্যাচ ফির সর্বোচ্চ ৫০ শতাংশ পর্যন্ত জরিমান করা হয়ে থাকে।