রাবিতে ছাত্রলীগের ২ নেতাকর্মীর রগ কর্তন

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ২ ছাত্রলীগ নেতাকর্মীকে কুপিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনার জন্য ছাত্রলীগ ছাত্রশিবিরকে দায়ী করেছে । মঙ্গলবার সকাল পৌনে ৮টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের হবিবুবর রহমান হলের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

আহতদের মধ্যে মাসুদ হাসান ছাত্রলীগ কর্মী। তিনি ইতিহাস বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। এবং টগর মোহাম্মদ সালেহীর ছাত্রলীগের ছাত্র-বৃত্তি বিষয়ক সম্পাদক । সে সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র।

উল্লেখ্য, আহতদের মধ্যে মাসুদ হাসানের এক পা অনেকটা বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। টগর মোহাম্মদ সালেহীর হাত-পায়ের রগ কেটে দেয়া হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, মঙ্গলবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের মাদার বখশ হল থেকে ক্লাসে যাওয়ার জন্য বের হন মাসুদ ও টগর। তারা হল থেকে হেঁটে জিয়াউর রহমান হল পার হয়ে হাবিবুর হলের সামনে আসেন। সেখানে একটি রিকশা নিয়ে নিয়ে ক্লাসের উদ্দেশে রওনা হন। এ সময় তাদের পেছন দিক থেকে হেঁটে আসা ৪-৫ জনের একটি গ্রুপ প্রথমে রিকশা থেকে তাদেরকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেয়। এরপর মাসুদের বাম পায়ের গোড়ালিতে কুপিয়ে তা শরীর থেকে অনেকটা বিচ্ছিন্ন করে দেয়। এছাড়া তার বাম হাতের রগও কেটে দেয় দুর্বৃত্তরা।

একপর্যায়ে টগরেরও হাত-পায়ের রগ কেটে দেয় দুর্বৃত্তরা। এ সময় পাশের দোকানদাররা এগিয়ে আসলে তারা দুটি ককটেল ফাটিয়ে পালিয়ে যায়। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাম্বুলেন্সে করে তাদের দু’জনকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

রাবি ছাত্রলীগ সভাপতি মিজানুর রহমান রানা বলেন, ‘শিবির ক্যাডাররা পরিকল্পিতভাবে হত্যার উদ্দেশ্যে তাদের ওপর হামলা চালিয়েছে। তাদের দুজনের অবস্থাই আশঙ্কাজনক।’

মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসেন বলেন, ‘পুলিশের ধারণা এ কাজ শিবির ছাড়া আর কেউ করেনি। আমরা অপরাধীদের ধরতে এরই মধ্যে অভিযান শুরু করে দিয়েছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রশিবিরের নেতা হান্নান, ওয়ালিউল্লাহ ও মাহমুদকে মারধরের সময় মাসুদও ছিল। এ কারণে শিবির তাদের ওপর হামলা করতে পারে।’

You Might Also Like