‌‌‍’সতীত্ব’ প্রমাণে অগ্নিপরীক্ষা দিতে হল পুনমকে

স্বামীর ঘর করতে হলে সকলের সামনে আগুনে তপ্ত লোহার রড হাতে ধরে দাঁড়াতে হবে! ‘সতীত্ব’ প্রমাণের জন্য এমনই অগ্নিপরীক্ষা দিতে বাধ্য করা হল ২৫ বছর বয়সী পুনমকে। এমন নৃশংস ঘটনাটি ঘটেছে মধ্যপ্রদেশের কঞ্জর সম্প্রদায়ের মধ্যে। ঘটনার কথা জানাজানি হতেই স্থানীয় আদালত এই অভিযোগে স্বামী, শাশুড়ি সহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করার নির্দেশ দিয়েছে।

ওই মহিলার অভিযোগ, তাঁর সতীত্ব অটুট রয়েছে, প্রমাণ করতে তাঁকে সর্বজনীন পঞ্চায়েতের সামনে আগুনে গরম করা লোহার রড হাতে ধরে দাঁড়াতে বলেছে স্বামী সহ শ্বশুরবাড়ির লোকজন। তাদের শর্ত ছিল, স্বামীর ঘর করতে হলে এই অগ্নিপরীক্ষায় তাঁকে পাস করতেই হবে !

২৫ বছরের পুনমের আইনজীবী সন্তোষ খোয়ারে একটি জনপ্রিয় সংবাদ-সংস্থাকে জানিয়েছেন, তাঁর মক্কেলকে বলা হয়েছে, হাতের চেটোয় তেল মাখানো গাছের পাতা রাখতে হবে। সেই চেটো দিয়ে ধরে রাখতে হবে আগুনে গরম লোহার রড। অভিযোগ শুনে প্রথম শ্রেণির জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রেখা চন্দ্রবংশী ভারতীয় দণ্ডবিধির ৪৯৮-এ ধারায় পুনমের স্বামী কুণাল ওয়াতকর, শ্বাশুড়ি তারা ও তাদের দুই ঘনিষ্ঠ আত্মীয় লীলা ও তার ছেলে সন্দীপের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করতে নির্দেশ দিয়েছেন।

আইনজীবী সন্তোষ খোয়ারে জানিয়েছেন, ২০০৭-এর ১৩ ডিসেম্বর, কঞ্জর সম্প্রদায়ের মেয়ে পুনমের সঙ্গে কুণালের বিয়ে হয়। বিয়ের পর পরই পণ চেয়ে অত্যাচার শুরু করে স্বামী, শ্বশুরবাড়ির লোকজন। শুধু তাই নয়, পুনমের কাছে ২ লক্ষ টাকা পণ চেয়ে তাঁর ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালাত তাঁরা। পরে তাঁর চরিত্র নিয়ে সন্দেহ, সংশয় জানিয়ে অভিযোগ তোলা শুরু করে। তাঁকে বলা হয়, এলাকার পঞ্চায়েতের সামনে দাঁড়িয়ে তাঁকে সতীত্বের পরীক্ষা দিতে হবে। কিন্তু পুনম, তাঁর বাবা-মা পঞ্চায়েতের সামনে হাজিরা দিতে অস্বীকার করলে পঞ্চায়েত প্রধানরা তাঁদের সামাজিক বয়কটের ফতোয়া দেয়। ফলে গত ফেব্রুয়ারি থেকে পুনম ও তাঁর বাপের বাড়ির লোকজনকে কোনও সামাজিক অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। যদিও মধ্যপ্রদেশের কঞ্জর সম্প্রদায়ের প্রধান শশী খাতাবিয়া পঞ্চায়েতের বিরুদ্ধে পুনমের তোলা অভিযোগ ‘ভিত্তিহীন’ বলে খারিজ করে দিয়েছেন তাঁর বক্তব্য, গোটা বিষয়টা পুনমের পরিবারের এর সঙ্গে পঞ্চায়েতের কোনও সম্পর্কই নেই।

পুনমের দাবি, অগ্নিপরীক্ষা দিয়ে সতীত্বের প্রমাণ দেওয়ার যুগ অনেকদিন আগেই শেষ হয়ে গিয়েছে। আজকের আধুনিক সময়ে এর কোনও মূল্যই নেই।

You Might Also Like