৮০ হাজার কোটি টাকা যায় কোথায়, প্রশ্ন পরিকল্পনা মন্ত্রীর

সরকারের অভ্যন্তরে দুর্নীতি নিয়ে ভাবতে শুরু করেছেন পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। প্রতি বছর সরকারের বিভিন্ন খাতে ৮০ হাজার কোটি টাকা খরচ হয়। এই বিপুল পরিমাণ টাকা যথাযথভাবে খরচ হলে দেশের উন্নয়নে বেশি সময় লাগার কথা নয় বলে মনে করেন তিনি।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর সিরডাপের আন্তর্জাতিক কনফারেন্স সেন্টার ‘বাংলাদেশ উন্নয়ন সম্ভবনা ও অবকাঠামো চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক সেমিনারে তিনি একথা বলেন। দৈনিক বণিক বার্তা ও বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান (বি আইডিএস) এই সেমিনারের আয়োজন করে।

পরিকল্পনা মন্ত্রী বলেন, ‘আমি দুর্নীতি নিয়ে ভাবতে শুরু করেছি। প্রতি বছর যে ৮০ হাজার কোটি টাকা ব্যয় হয়, সে টাকা কোথায় যায়? এত টাকা ব্যয় হলে দেশের উন্নয়ন হতে কত বছর লাগে?’

মন্ত্রী বলেন, ‘ব্যয়কৃত টাকার মধ্যে কিছু টাকা হয়তো প্রকল্পে ব্যয় হয় এবং কিছু টাকা সময় মতো সিদ্ধান্ত না নেয়ার কারণে অপচয় হয় । তবে দুর্নীতি ও অপচয় বন্ধ হলে অল্প সময়ে দেশের চেহারা পাল্টা দেয়া সম্ভব।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের কিছু সীমাবদ্ধতা রয়েছে এটা স্বীকার করি। তারপরও এগিয়ে যাচ্ছি। এগিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে সকলের সহযোগিতা রয়েছে। আমরা চাই অর্থ্নীতির প্রবৃদ্ধি যুক্তরাষ্ট্রের উপরে যাক। মাথা পিছু আয় হোক এক লাখ ডলার।’

মন্ত্রী আশা প্রকাশ করে বলেন, ‘আগামী দিনে দেশে অশিক্ষিত লোক থাকবে না। কৃষক থেকে শুরু করে সিএনজি চালকসহ সমাজের সকল স্তরের মানুষ ইংরেজিতে কথা বলতে পারবে।’

রাজনীতির গুরুত্ব তুলে ধরে মন্ত্রী বলেন, ‘দেশের উন্নয়ন করতে হলে রাজনীতিবিদদের দরকার আছে। তদের বাদ দিয়ে দেশের উন্নয়ন করা সম্ভব নয়।’ এ সময় দেশের সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের রাজনীতিতে আসার জন্য আহ্বান জানান।

বণিক বার্তার সম্পাদক দেওয়ান হানিফ মাহমুদের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন- অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান, বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর আবুল কাশেম, অর্থনীতিবিদ ড. এ কে এনামুল হক, জ্বালানি বিশেষজ্ঞ এম শামসুল আলম, গণস্বাস্থের চেয়ারম্যান ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী প্রমুখ।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বি আইডিএসর সিনিয়র গবেষক ড. নাজনীন আহমেদ।

You Might Also Like