৬০ বছরের বৃদ্ধের সঙ্গে ১৪ বছরের কনের বিয়ে!

আট লাখ টাকা দেয়ার প্রলোভনে অস্টম শ্রেণির এক ছাত্রীকে বিয়ে করার জন্য ছাত্রীর মায়ের সঙ্গে চুক্তি করে বর ষাট বছরের নুরুল হুদা।

খবর পেয়ে সোমবার সন্ধ্যায় বিয়ের আসরে উপস্থিত হয় পুলিশ। বিয়ে না করেই আসর থেকে পালিয়ে রক্ষা পায় নুরুল হুদা। ছাত্রীর নাম শাহনাজ আক্তার মুন্নি।

ঘটনাটি ঘটেছে বান্দরবান সদর উপজেলার ক্যচিং ঘাট এলাকায়। মুন্নি বান্দরবান সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেনির ছাত্রী।

স্থানীয়রা জানান, ক্যাচিং ঘাট এলাকার বাসিন্দা মৃত আবুল বাশারের স্ত্রী ছেনু আরা বেগম এবং ছাত্রীর বড় ভাই শাহজাহান সৌদি প্রবাসী নুরুল হুদার(৬০) সঙ্গে আট লক্ষ টাকার বিনিময়ে এ বিয়েতে রাজি হয়।

বাল্য বিয়ের খবর পেয়ে স্থানীয় জনতার সহায়তায় ডিবি পুলিশের একটি দল বিয়ের অনুষ্টানস্থল ঘেরাও করে। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে বর নুরুল হুদা, কাজী ও উভয় পক্ষের লোকজন পালিয়ে যায়।

স্থানীয় আবুল কালাম, জাফর, মোজাফ্ফর জানান, বর নুরুল হুদার সৌদি আরবে একটিসহ বর্তমানে তার ৪টি স্ত্রী রয়েছে।

এব্যাপারে নুরুল হুদা বর্তমানে তার দুই স্ত্রী থাকার কথা স্বীকার করে বলেন, আট লক্ষ টাকা নগদ দিয়ে আমি মেয়েটিকে বিবাহ করতে চেয়েছিলাম। যেহেতু মেয়েটি রাজি আছে, তাই সেখানে ৬০ বছর আর ১৪ বছর কোন ব্যাপার না।

স্কুল ছাত্রীর বড় ভাই শাহজাহান আট লাখ টাকার বিনিময়ে তার বোনকে বিয়ে দেয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, আমার বোন সব কিছু জেনে শুনে আমাদের কথামত এই বিয়েতে রাজি হয়েছে।

You Might Also Like