Uncategorized

৪ বছরের শিশুর বুদ্ধিমত্তায় বাঁচল মায়ের জীবন

মাত্র চার বছরের মেয়ে। আর এই বয়সেই তার বিচক্ষণতায় বেঁচে গেলে তার মায়ের জীবন।

অস্ট্রেলিয়ার সাউথ ওয়েলস পুলিশ জানিয়েছে, তড়িৎ বুদ্ধিমত্তার জন্য মেয়েটি বিশেষ স্বীকৃতি পেতে যাচ্ছে।

মেয়েটির মা গাড়ির নিচে চাপা পড়লে সে দ্রুত এমার্জেন্সি সার্ভিসকে ফোন করে খবর দেয় এবং উদ্ধারকর্মীরা এসে তার মাকে উদ্ধার করেন। হয়তো আর কিছুক্ষণ দেরি হলে হৃদয়বিদারক কিছু ঘটে যেত।

মেয়েটির মা গাড়ির নিয়ন্ত্রণ হারানোর পর মাটিতে কয়েকবার পাঁক খায় সেটি এবং তাদের নিজস্ব সম্পত্তির সীমানায় আটকে যায়। প্রায় ৭০০ মিটার দূর থেকে তার ছোট্ট মেয়ে এ দৃশ্য দেখছিল। সে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে এবং পড়ে গিয়ে মুখমণ্ডলে আঘাত পায়। কিন্তু সে আবার বাড়িতে ফিরে যেতে সক্ষম হয় এবং এমার্জেন্সি সার্ভিসকে ফোন করে দুর্ঘটনার খবর দেয়।

গাড়িটি রাস্তা থেকে ১০০ মিটার দূরে গিয়ে থেমে যায় এবং ওই নারীর পা বেকায়দায় পড়ে আটকে যায়। উদ্ধারকর্মীরা এসে তাকে উদ্ধার করে এবং আকাশ পথে তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয়।

মেয়েটি তার মায়ের দুর্ঘটনায় পড়ার দৃশ্য থেকে থেমে থাকেনি। সে ছুটে আসতে গিয়ে কয়েকবার পড়ে যায় কিন্তু থমকে যায়নি। মায়ের অবস্থা দেখে সে আবার বাড়ি ফিরে যায় এবং এমার্জেন্সি বিভাগকে ফোন দেয়। সত্যিই, তড়িৎ বুদ্ধিমত্তার অধিকারী হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়ার যোগ্য মেয়েটি।