১৫ মিলিয়ন ডলার ফেরতে বাংলাদেশের প্রক্রিয়া শুরু

নিউইয়র্কের ফেডারেল রিজার্ভ থেকে চুরি যাওয়া অর্থের মধ্যে ১৫ মিলিয়ন ডলার ফিলিপাইন থেকে ফেরত আনার প্রক্রিয়া শুরু করেছে সফররত বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিনিধি দল। অর্থের মালিকানা দাবি করে শুক্রবার প্রতিনিধি দল একটি হলফনামা জমা দিয়েছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ তথ্য জানিয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিনিধি দলের সদস্যরা হচ্ছেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের আর্থিক গোয়েন্দা বিভাগের কর্মকর্তা দেবপ্রসাদ দেবনাথ ও আব্দুর রব এবং কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আইনজীবী আজমালুল হোসাইন।

গত ফেব্রুয়ারিতে নিউইয়র্কের ফেডারেল রিজার্ভ থেকে বাংলাদেশ ব্যাংকের ৮১ মিলিয়ন ডলার চুরি করে হ্যাকররা। এ অর্থ ফিলিপাইনের রিজল কমার্শিয়াল ব্যাংকের মাকাতি সিটি শাখার চারটি অ্যাকাউন্টে জমা হয়। পরে সেখান থেকে তা উঠিয়ে নেয় জড়িতরা। এ ঘটনায় ফিলিপাইনের সরকারের পক্ষ থেকে সিনেটের ব্লু রিবন কমিটিকে তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়। কমিটির শুনানি চলাকালে ক্যাসিনো জাঙ্কেট অপারেটর কিম অং তার কাছে ১৫ মিলিয়ন ডলার থাকার কথা স্বীকার করেন এবং পরে তা দেশটির অ্যান্টি মানি লন্ডারিং কাউন্সিলের (এএমএলসি) কাছে ফেরত দেন। ফিলিপাইনের আইন অনুযায়ী, কোনো তৃতীয় পক্ষ আদালতে দাবি উত্থাপন না করলে এ অর্থ বাংলাদেশ ব্যাংককে ফেরত দেওয়া হবে। তবে এর জন্য মালিকানার স্বপক্ষে বাংলাদেশ ব্যাংককে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দাখিল করার নির্দেশ দিয়েছে ফিলিপাইনের বিচার বিভাগ (ডিওজে)।

ম্যানিলায় বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিনিধি দলের চারদিনের সফর শুক্রবার শেষ হতে যাচ্ছে। এই দলটিকে ফিলিপাইনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে সহযোগিত করেছেন দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত জন গোমেজ। তিনি বলেছেন,‘ ১৫ মিলিয়ন ডলার উদ্ধারের চূড়ান্ত পর্যায়ে চলে এসেছি আমরা। কিন্তু আমরা আশা করি ফিলিপাইনের সিনেট কমিটি আবারও শুনানি শুরু করবে যাতে আমরা মামলার বিস্তারিত বিষয়গুলো জানতে পারি।’

রয়টার্স জানিয়েছে, বাংলাদেশের ব্যাংকের কর্মকর্তারা ইতিমধ্যে ফিলিপাইনের বিচার বিভাগ ও ম্যানিলায় এএমএলসি কর্মকর্তাদের সঙ্গে দেখা করেছেন। শুক্রবার তারা দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন। প্রতিনিধি দলটি নিউইয়র্কের ফেডারেল রিজার্ভের কথা উল্লেখ করে একটি হলফনামা জমা দিয়েছে। এতে ফেডারেল রিজার্ভের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট থেকে এ অর্থ চুরি গেছে। এ হলফনামা ফিলিপাইনের বিচার বিভাগে মামলার অন্যান্য কাগজপত্রের সঙ্গে জমা দেওয়া হবে।

You Might Also Like