১২ মার্চ শেখ হাসিনা পানি শোধনাগার উদ্বোধন

দৈনিক ১৪ কোটি লিটার পানি সরবরাহ করার সক্ষমতা নিয়ে ১২ মার্চ চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ায় আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা করতে যাচ্ছে ‘শেখ হাসিনা পানি শোধনাগার’।

দেশে এটিই প্রথম বৃহত্তম এবং সর্বাধুনিক বিশুদ্ধ পানি সরবরাহের শোধনাগার। চট্টগ্রাম মহানগরী থেকে প্রায় ৪০ কিলোমিটার দূরে রাঙ্গুনিয়া উপজেলার পোমরা ইউনিয়নে কর্ণফুলী নদীর তীরে সাড়ে ৩৫ একর জমির ওপর এই পানি শোধনাগারটি নির্মান করা হয়েছে।

ইতিমধ্যে শোধনাগার থেকে পরীক্ষামূলক পানি সরবরাহও শুরু হয়েছে। ১২ মার্চ প্রধানমন্ত্রী এই শোধনাগারটি আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন বলে নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী এম ফজলুল্লাহ।

ওয়াসা কর্তৃপক্ষ জানান, ১২ মার্চ চট্টগ্রামে পতেঙ্গা থেকে বাংলাদেশ নৌ বাহিনীর বোট ক্লাবে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এই শোধনাগারটি উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী।

চট্টগ্রাম ওয়াসা’র তথ্য মতে, আন্তর্জাতিক সহায়তা সংস্থা জাইকার সহযোগিতায় ১ হাজার ৮৪৮ কোটি ৫২ লাখ টাকা ব্যয়ে রাঙ্গুনিয়ায় এই পানি শোধনাগারের কাজ সম্পন্ন করেছে চট্টগ্রাম ওয়াসা। এর ফলে চট্টগ্রাম নগরবাসীর জন্য দিনে ১৪ কোটি লিটারেরও বেশি পানি সরবরাহ করতে সক্ষমতা অর্জন করলো ওয়াসা। এর আগে চট্টগ্রাম ওয়াসার পানি উৎপাদনের ক্ষমতা ছিল সর্বোচ্চ ১৮ কোটি লিটার।

নতুন প্রকল্পের পানি যোগ হওয়ায় এখন চট্টগ্রাম ওয়াসার পানি উৎপাদনের ক্ষমতা সর্বোচ্চ ৩২ কোটি লিটারে পৌঁছেছে। তবে চট্টগ্রাম নগরবাসীর পানির দৈনিক চাহিদা প্রায় ৫০ কোটি লিটার। নতুন প্রকল্পে ১৪ কোটি লিটার যোগ হলেও আরও ১৮ কোটি লিটারের পানির ঘাটতি থেকে যাবে। তবে চট্টগ্রামের মদুনাঘাতে আরও একটি নতুন পানি সরবরাহ প্রকল্পের কাজ এগিয়ে চলছে দ্রুত গতিতে।

চট্টগ্রাম ওয়াসার প্রধান প্রকৌশলী জহুরুল হক জানান, কর্ণফুলী নদীর পানি পরিশোধন করে দৈনিক ১৪ কোটি লিটার পানি সরবরাহ করার ক্ষমতা নিয়ে রাঙ্গুনিয়ায় প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হয়েছে। রাঙ্গুনিয়া থেকে পাইপ লাইনে পানি জমা করা হচ্ছে নগরীর বায়েজিদ বাংলাবাজার সংলগ্ন রিজার্ভারে।

You Might Also Like