১২ আগস্ট প্রাণঘাতী করোনার টিকা আনছে রাশিয়া

আর চারদিন পর প্রথম দেশ হিসেবে করোনাভাইরাসের টিকা আনছে রাশিয়া। প্রাণঘাতী ভাইরাস দমনে আগামী ১২ আগস্ট দেশে উৎপাদিত টিকা আনার কথা স্থানীয় গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন রাশিয়ান উপস্বাস্থ্যমন্ত্রী ওলেগ গ্রিদনেভ।

গামালেয়া ইনস্টিটিউট ও রাশিয়ান প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় যৌথভাবে উৎপাদন করা এই টিকার তৃতীয় ধাপের পরীক্ষা শেষের পথে। শুক্রবার (৭ আগস্ট) উফা শহরে একটি ক্যান্সার সেন্টার ভবনের উদ্বোধনের সময় স্পুৎনিক নিউজকে গ্রিদনেভ বলেছেন, ‘গামেলেয়া সেন্টারের তৈরি টিকার নিবন্ধন করা হবে ১২ আগস্ট। এই মুহূর্তে তৃতীয় ও শেষ ধাপের ট্রায়াল চলছে। এই ধাপের ট্রায়াল হচ্ছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। টিকা যে নিরাপদ তা অবশ্যই নিশ্চিত করতে হবে। চিকিৎসক ও বয়স্ক নাগরিকদের প্রথমে টিকা দেওয়া হবে।’

দ্বিতীয় ধাপের ট্রায়ালে অংশ নেওয়া স্বেচ্ছাসেবীদের মধ্যে ইমিউনিটি বাড়তে দেখা গেছে জানান গ্রিদনেভ। এছাড়া কোনও ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায়নি তাদের মধ্যে।

গত সপ্তাহে রাশিয়ান স্বাস্থ্যমন্ত্রী মিখাইল মুরাশকো জানান, ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের শেষ ধাপে টিকার ব্যবহারে উচ্চমাত্রার কার্যকারিতা লক্ষ করা গেছে। মুরাশকো আরও বলেন, আগস্টে কেবল চিকিৎসক ও বয়স্কদের এই টিকা দেওয়া হবে। আর অক্টোবরে দেশজুড়ে চালানো হবে টিকা প্রদান কর্মসূচি।

গত ১৮ জুন মস্কোর শেচেনোভ বিশ্ববিদ্যালয়ে শুরু হয় ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের প্রথম ধাপ, যাতে অংশ নেয় ৩৮ স্বেচ্ছাসেবী।আর দ্বিতীয় পর্ব শুরু হয় ২০ জুলাই। দুই ধাপেই টিকার কার্যকারিতা বেশ ফলপ্রসূ ছিল বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা তাস।

অবশ্য তাড়াহুড়ো করে কার্যকারিতা ভালোভাবে যাচাই না করে টিকা আনার ব্যাপারে সতর্ক করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। তাদের মতে আগেভাগে টিকা আনার প্রতিযোগিতার কারণে হিতে বিপরীত হতে পারে। বাজারে ছাড়ার আগে ট্রায়ালের সবগুলো ধাপ সফলভাবে পেরিয়ে আসার কথা বলেছে জাতিসংঘের সংস্থাটি।

সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া