হ্যাটট্রিকে রেকর্ড গড়লেন নেইমার, জয় পেল ব্রাজিল

মঙ্গলবার রাতে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচে বলিভিয়ার বিপক্ষে মেসি গোল না পেলেও বুধবার সকালের ম্যাচে দারুণ এক হ্যাটট্রিক উপহার দিয়েছেন ব্রাজিলিয়ান তারকা নেইমার।

তার হ্যাটট্রিকে ভর করে পেরুর বিপক্ষে ৪-২ গোলে জিতেছে রেকর্ড পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

শুধু হ্যাটট্রিক গোলে জয় পায়নি নেইমার। ভেঙেছেন দুটি বিশ্ব রেকর্ডও।

পরিসংখ্যান বলছিল, আর মাত্র এক গোল করতে পারলে কিংবদন্তি রোনালদো দ্য লিমাকে ছুঁয়ে ফেলবেন তিনি। আর দুই করতে পারলে তাকে ছাড়িয়ে ব্রাজিলের ইতিহাসের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়ে যাবেন নেইমার।

পেরুর বিপক্ষের ম্যাচ দিয়েই ব্রাজিলের ইতিহাসের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতা হলেন নেইমার।

বাংলাদেশ সময় বুধবার সকালে পেরুর আতিথ্য গ্রহণ করে ব্রাজিল।

তারকায় ভরপুর সেলেকাওদের সঙ্গে সেয়ানে সেয়ানে লড়াই চালিয়ে যায় পেরু।

আক্রমণের জবাবে পাল্টা আক্রমণ করে পেরু। এতে সফলও হয় পেরু। ম্যাচের শুরুতেই লিড নেয় পেরু। খেলা শুরুর ৬ মিনিটের মাথায় দুর্দান্ত ভলিতে পরাস্থ ব্রাজিল গোলরক্ষক ওয়েভারটনকে পরাস্ত করে পেরুর ফরোয়ার্ড আন্দ্রে কারিল্লো।

গোল শোধে মরিয়া হয়ে ওঠে সেলেকাওরা। ম্যাচের ২৬ মিনিটে পেরুর ডি-বক্সে উড়ে আসা একটি ক্রসকে লাফিয়ে ধরতে যান নেইমার। এ সময় নেইমারের জার্সি ধরে তাকে ফেলে দেন পেরুর মিডফিল্ডার ইয়োশিমার ইয়োটান। সঙ্গেসঙ্গে রেফারির বাঁশি। সফল স্পটকিক থেকে গোল করে সমতায় ফেরান নেইমার।

এর ৩ মিনিট পর ফের পেরুর জালে বল জড়ান নেইমার। কিন্তু রিশার্লিসন অফসাইডে থাকায় সে গোল বাতিল করে দেন রেফারি।

এভাবেই আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে চলতে থাকে প্রায় ৯ মিনিট।

৪১তম মিনিটে ডি-বক্সে দারুণ সুযোগ হাতছাড়া করেন ফিরমিনো। এভাবে প্রথমার্ধ শেষ হলে ১-১ সমতায় বিরতিতে যায় দুই দল।

দ্বিতিয়ার্ধে নেমে ৫৯তম মিনিটে আবারও লিড নেয় পেরু। এবার পেরুর নায়ক রেনাতো তাপিয়া। ইয়োতুনের লম্বা থ্রো ইন হেডে ক্লিয়ার করতে গিয়ে রেনাতোর পায়ের কাছে বল পাঠিয়ে দেন রদ্রিগো কাইয়ো। আর জোরালো ভলিতে গোলরক্ষক ওয়েভারটনকে পরাস্ত করেন রেনাতো।

২-১ স্কোরলাইনে ৬৪ মিনিট পর্যন্ত খেলা হয়ে যায়। এ সময় নেইমারের কর্নারে হেড করেন ফিরমিনো। আর তাকে গোললাইনের মুখ থেকে আলতো ছোঁয়ায় বল জালে জড়ায় এভারটন ফরোয়ার্ড রিশার্লিসন।

৮৩তম মিনিটে লিড নেয় ব্রাজিল। সেটি নেইমারের কল্যাণে। ডি-বক্সে দ্বিতীয়বারের মতো ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টিটি পায় ব্রাজিল ।আরেকটি সফল স্পট কিকে ম্যাচে নিজের জোড়া গোল পূর্ণ করেন নেইমার।

৩-২ ব্যবধানে এগিয়ে যায় ব্রাজিল। ৯০ মিনিটের খেলা শেষ হলে তা গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে।

আর এই যোগ করা সময়েই বাজিমাত করেন নেইমার। হ্যাট্রটিক গোল করে ৪-২ ব্যবধানে জয় ছিনিয়ে আনেন। করেন দুটি রেকর্ড।

বলতে গেলে ২ বার এগিয়ে জয়ের দারুণ সম্ভাবনা জাগিয়েছে পেরু। কিন্তু পেরুর সেই সম্ভাবনাকে ধুলোয় মিশিয়ে দেন নেইমার। তার দারুণ হ্যাটট্রিকে ঘুরে দাঁড়িয়ে টানা দ্বিতীয় জয় নিয়ে ফিরেছে ব্রাজিল।

You Might Also Like