হুথি দমনে আমেরিকা থেকে ফের অস্ত্র কিনল সৌদি

যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেস সৌদি আরবের নিকট ১.২ বিলিয়ন ডলার মূল্যের বোমা বিক্রয় করার অনুমোদন দিয়েছে।

ইয়েমেনের হুথি বিদ্রোহীদের সাথে যুদ্ধে সৌদি বিমান বাহিনীর অস্ত্রভাণ্ডারে বোমার অপ্রতুলতা দেখা দেয়ায় নতুন করে এ অস্ত্র ক্রয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সৌদি সরকার।

কংগ্রেস অস্ত্র বিক্রয়ের সিদ্ধান্ত ৩০ দিনের জন্য স্থগিত করার ক্ষমতা রাখে। কিন্তু যেহেতু সৌদি বাহিনী প্রতিদিন ইয়েমেনে হামলা করছে তাই জরুরি ভিত্তিতে প্রায় ১৯,০০০ স্মার্ট বোমা সৌদিগামী জাহাজে পাঠানো হয়েছে।

মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর থেকে বলা হয়, সৌদি রাজকীয় বিমান বাহিনীর ভাণ্ডারে অস্ত্র ঘাটতি দেখা দেয়ায় জরুরি ভিত্তিতে এই বোমাগুলো সরবারহ করা হয়েছে।

তেল-সমৃদ্ধ সৌদি আরব দীর্ঘদিন যাবৎ মার্কিন অস্ত্রের প্রথম শ্রেণীর ক্রেতা এবং বর্তমান পরিস্থিতিতে এই অস্ত্র চুক্তি কোনো আকস্মিক ঘটনা নয়।

কিন্তু এই চুক্তিটি বিতর্কেরও ঊর্ধ্বে নয়। সৌদি বাহিনী ইয়েমেনের শিয়াপন্থি হুথি বিদ্রোহীদের দমনের নামে বিমান হামলা চালিয়ে প্রতিদিন অসংখ্য সাধারণ মানুষ হত্যা করছে।

জাতিসংঘের হিসাব মতে, সৌদি ও তার সুন্নী মিত্ররা বোমা হামলা চালিয়ে ৫,০০০ এরও বেশি ইয়েমেনি সাধারণ নাগরিককে হত্যা করেছে।

সরবারহকৃত অস্ত্রের মধ্যে ৫,২০০টি লেজার বোমা ও প্রায় ১,১০০টি বিধ্বংসী দূরপাল্লার বোমা রয়েছে। এছাড়া সাধারণ বোমা রয়েছে ১২,০০০ এরও বেশি, যেগুলো ৫০০ থেকে ২,০০০ পাউন্ড ওজন সম্পন্ন। আরো ১,৫০০টি ২,০০০ পাউন্ড ওজনের ‘বাঙ্কার বিধ্বংসী’ বোমাও সরবারহ করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

এগুলো মূলত কংক্রিট নির্মিত ভবন ধ্বংসের জন্য তৈরি করা হয়েছে। গতমাসেও সৌদি যুক্তরাষ্ট্র থেকে প্রায় ১১ বিলিয়ন ডলার মূল্যের অস্ত্র আমদানি করেছিল।

You Might Also Like