হবিগঞ্জে র‍্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৪ শিশু হত্যা মামলার আসামি নিহত

হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলার সুন্দ্রাটিকি গ্রামের চার শিশুকে অপহরণের পর হত্যার মামলার অন্যতম আসামি সিএনজিচালিত অটোরিকশার চালক বাচ্চু মিয়া র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‍্যাব) সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার ভোর রাত সাড়ে ৪টার দিকে চুনারুঘাট দেওরগাছ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

র‍্যাব-৯ শ্রীমঙ্গলের কোম্পানি কমান্ডার কাজী মনিরুজ্জামান জানান, বাহুবলে চার শিশু হত্যার ঘটনায় র‍্যাব সদস্যরা বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালায়। এর অংশ হিসেবে সিলেটের বিশ্বানাথ থেকে বুধবার রাতে শাহেদ নামে এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে শাহেদ জানান, রাতেই দেওরগাছ এলাকা দিয়ে বাচ্চু ভারতে পালিয়ে যাবে। বিষয়টি জানার পরে র‍্যাবের আরেকটি দল ওই এলাকায় অভিযান চালায়। এসময় র‍্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে বাচ্চু বাহিনী গুলি চালালে দুই র‍্যাব সদস্য আহত হন। আত্মরক্ষার্থে র‍্যাবও পাল্টা গুলি চালালে বাচ্চু মারা যান। ঘটনাস্থল থেকে র‍্যাব সদস্যরা একটি নাইন এমএম পিস্তল ও দুই রাউন্ড গুলি উদ্ধার করেছে।

বাচ্চুর মরদেহ বর্তমানে চুনারুঘাট হাসপাতালে রাখা হয়েছে বলে জানান মনিরুজ্জামান।

এর আগে ১৯ ফেব্রুয়ারি হবিগঞ্জ পুলিশ সুপার কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার জয়দেব কুমার ভদ্র কিলিং মিশনে অংশ নেয়া রুবেল মিয়ার (১৭) স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি তুলে ধরে বলেন, গ্রাম পঞ্চায়েত আব্দুল আলী ওরফে বাগল মিয়ার নির্দেশে এ কিলিং মিশনে অংশ নেয় ৬ জনের একটি দল। আব্দুল আলী ওরফে বাগল মিয়ার ছেলে রুবেল মিয়া (১৭), একই গ্রামের আরজু মিয়া (২০) ও সিএনজিচালিত অটোরিকশা চালক বাচ্চু মিয়াসহ (২৫) মোট ৬ জন তাদের গ্রামের চার শিশুকে হত্যা করে।

প্রসঙ্গত, গত ১২ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় নিখোঁজ হয় সুন্দ্রাটিকি গ্রামের ওয়াহিদ মিয়ার ছেলে সুন্দ্রাটিকি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র জাকারিয়া শুভ (৮), আবদাল মিয়ার ছেলে প্রথম শ্রেণির ছাত্র মনির মিয়া (৭), আব্দুল আজিজের ছেলে চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র তাজেল মিয়া (১০) ও সুন্দ্রাটিকি আনোয়ারুল উলুম ইসলামিয়া মাদরাসার নুরানি প্রথম শ্রেণির ছাত্র আব্দুল কাদিরের ছেলে ইসমাইল মিয়া (১০)। নিখোঁজের পাঁচ দিন পর ১৭ ফেব্রুয়ারি সকালে গ্রাম থেকে প্রায় ১ কিলোমিটার দূরের একটি টিলা থেকে বালু মিশ্রিত মাটিচাপা অবস্থায় ওই চার শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়। বর্বরোচিত এ হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে এ পর্যন্ত ৭ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

You Might Also Like