হবিগঞ্জে পুলিশের সঙ্গে বিএনপির সংঘর্ষে আহত ২০, আটক ৭

হবিগঞ্জ শহরে বিএনপির কালো পতাক মিছিলে পুলিশ বাঁধা দেওয়াকে কেন্দ্র করে পুলিশের সঙ্গে দলীয় নেতা-কর্মীদের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন। তাদেরকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। কয়েক দফা সংঘর্ষের ঘটনায় ৭ ছাত্রদল নেতা-কর্মীকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে।

সোমবার দুপুরে জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আমিনুর রশিদ এমরান ও সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক সেলিমের নেতৃত্বে পৃথক দুটি কালো পতাকা মিছিল বের করে। এ সময় মিছিলে পুলিশ বাঁধা দেয়। এ নিয়ে দলীয় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে ২০ জন আহত হন। এ ঘটনার পর পুলিশ শহরের বিভিন্ন স্থানে সাঁড়াশি অভিযান চালায়।

এদিকে হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলার মিরপুরে পুলিশ-ছাত্রদল নেতা-কর্মীদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। দুপুর ১২টায় মিরপুর বাজারের বেসিক ব্যাংকের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

উপজেলা ছাত্রদল আহ্বায়ক আব্দুল আহাদ কাজলের নেতৃত্বে শতাধিক নেতা-কর্মী কালো পতাকা মিছিল নিয়ে ওই স্থানে আসলে পুলিশ দুদিক থেকে মিছিলটিকে ঘিরে ফেলে। এ সময় উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। এক পর্যায়ে মিছিলকারীরা পিছু হটে।

সংঘর্ষের ঘটনায় জেলা ছাত্রদল সদস্য এম এ রুমেল, কলেজ ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক আহত সাইদুর রহমান, পৌর ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক আল আমিন তালুকদার, সদর উপজেলা ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক শাহ আলম, উজ্জল, মুতাব্বির রাব্বি, আল আমিন শুভনকে আটক করেছে পুলিশ।

হবিগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, গাড়ি ভাঙচুর ও পুলিশের ওপর হামলার দায়ে ৭ জনকে আটক করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। এ ব্যাপারে দ্রুত বিচার আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। আটককৃতদের সোমবার বেলা ৩টায় আদালতে পাঠানো হয়েছে।

You Might Also Like