স্বেচ্ছায় সাপের পেটে

ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে আমাজনের বৃষ্টি অরণ্য। সবার কাছে বিষয়টি তুলে ধরতে ব্যাকুল প্রকৃতিবিদ পল রসোলি। কিন্তু মানুষ তো এমনি এমনি কিছু শুনতে চায় না। চমকপ্রদ কিছু দেখাতে পারলে তবেই সবার দৃষ্টি কাড়া যায়। সে রকম একটা চমক দেখাতেই স্বেচ্ছায় সাপের পেটে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। তা-ও যে সে সাপ নয়, সুবিশাল এক অ্যানাকোন্ডা। পলকে ওই সাপের গলাধঃকরণের পুরো দৃশ্যটাই ক্যামেরায় ধারণ করা হয়।

বার্তা সংস্থা এএফপি জানায়, অ্যানাকোন্ডাটি রসোলিকে জীবন্ত গিলে ফেলে। আধঘণ্টার মতো সাপটির পেটে ছিলেন তিনি। এই দৃশ্যের প্রতিটি মুহূর্ত ধারণ করা হয় ভিডিও ক্যামেরায়।

মৃত্যুর ঝুঁকি ছিল। কিন্তু শেষমেশ জীবিত অবস্থায় অ্যানাকোন্ডার পেট থেকে বের হতে সক্ষম হয়েছেন এই একনিষ্ঠ পরিবেশবিদ। রোমহর্ষক এই ঘটনার ওপর নির্মিত তথ্যচিত্রটি রোববার থেকে ডিসকভারি চ্যানেলে প্রচারিত হওয়ার কথা।

প্রায় এক দশক ধরে পরিবেশ নিয়ে কাজ করছেন রসোলি। তিনি বলেন, পৃথিবীর সবাই জানেন, ক্রান্তীয় অঞ্চলের বন হারিয়ে যাচ্ছে। বনের গুরুত্বের কথা অনেকেই বলতে পারেন। কিন্তু এখনো যথেষ্ট মানুষ ব্যাপারটিতে গুরুত্ব দিচ্ছেন না। যথেষ্ট মানুষ এই সমস্যা অনুধাবন করছেন না।

দুঃসাহসিক এই অভিযানে অংশ নিতে পেরে রসোলি গর্বিত। ঘটনার বিবরণ থেকে জানা যায়, অ্যানাকোন্ডার পেটে যাওয়ার জন্য শ্বাসরোধ ঠেকাতে রসোলির জন্য বিশেষ পোশাক তৈরি করেন বিশেষজ্ঞরা। ওই পোশাকে শ্বাস-প্রশ্বাস নেওয়ার ব্যবস্থা ছিল। আরও ছিল ক্যামেরা ও যোগাযোগব্যবস্থা।
অ্যানাকোন্ডার পেটে আধঘণ্টার মতো অবস্থান করেন রসোলি। পুরো সময় রসোলি তাঁর দলের অন্য সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করেন। তবে তিনি কীভাবে সাপের পেট থেকে বেরিয়ে এসেছেন, এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানানো হয়নি। তিনি দাবি করেন, সাপটির কোনো ক্ষতি না করেই বের হয়েছেন তিনি।

তথ্যচিত্র থেকে পাওয়া অর্থ সচেতনতা ও পরিবেশ সংরক্ষণে ব্যয় করা হবে বলে জানিয়েছেন রসোলি। তবে তাঁর এমন কাজের কড়া সমালোচনা করেছেন প্রাণী অধিকার নিয়ে কাজ করা গোষ্ঠীগুলো।

You Might Also Like