স্বামীর সহযোগিতায় স্ত্রী গণধর্ষিত

গাজীপুরের শ্রীপুরে স্বামীর সহযোগিতায় এক গৃহবধূকে গণধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় দুই জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার রাতে ধর্ষিতা তার স্বামী জীবনকে প্রধান আসামি করে ৬ জনের নাম উল্লেখ করে শ্রীপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে বিষয়টি জানাজানি হয়।

সোমবার রাতে উপজেলার তেলিহাটি ইউনিয়নের সাইটালিয়া বনে এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্তদের সকলের বাড়ি সাইটালিয়া গ্রামে।

এ ঘটনায় আফাজ উদ্দিনের ছেলে অভিযুক্ত রুবেলকে এলাকাবাসী পুলিশে সোপর্দ করেছে। পরে পুলিশ তমিজ উদ্দিনের ছেলে ফারুককে গ্রেপ্তার করে।

অভিযুক্ত অন্যরা হলেন- মৃত গিয়াস উদ্দিনের ছেলে কামরুল, মৃত মনসুর আলীর ছেলে নাজিম উদ্দিন এবং মৃত আলিম উদ্দিনের ছেলে আফাজ উদ্দিন।

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-তদন্ত) মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ জানান, নির্যাতিতার স্বামী জীবন সোমবার রাতে ভাড়া করা দুই নারী (পতিতা) ও একজন বন্ধুসহ একটি সিএনজি যোগে সাইটালিয়া বনের দিকে যাওয়ার খবর পান।

ওই খবরে স্ত্রীও আরেকটি অটো রিকশা নিয়ে স্বামীর সন্ধানে পেছনে ছুটে যান। সাইটালিয়া বনের ভেতরে তার স্বামীকে দুই নারীসহ হাতেনাতে ধরে ফেলেন। সেখানে ধর্ষিতা এবং তার স্বামীর মধ্যে হাতাহাতি ও কথা কাটাকাটি হয়।

এক পর্যায়ে জীবন তার স্ত্রীকে সামলানোর জন্য বন্ধুকে পরামর্শ দেন। এ সময় ওই বন্ধু স্ত্রীকে স্বামীর সামনেই শারীরিক নির্যাতন করেন। এক পর্যায়ে স্বামী জীবন ভাড়া করা নারীসহ পালিয়ে যান।

পরে স্ত্রীর ভাড়া করা অটোরিকশাচালক রুবেল এবং স্বামীর অপর ৫ সহযোগী নির্যাতিতাকে বনের মধ্যেই ধর্ষণ ও শারীরিক নির্যাতন করে ফেলে রেখে যায়।

স্থানীয়দের সহায়তায় ধর্ষিতা রাতেই বাড়ি ফিরে যান।

মঙ্গলবার সকালে ধর্ষিতা এলাকাবাসীর কাছে পুরো ঘটনা খুলে বলেন। এসময় এলাকাবাসী রুবেলকে আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেন।

ওসি জানান, এ ব্যাপারে মঙ্গলবার রাত ১০টায় ধর্ষিতা শ্রীপুর থানায় মামলা দায়ের করেন। এতে তার স্বামী জীবনকে প্রধান আসামি করে ৬ জনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে।

বুধবার ধর্ষিতাকে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে।

You Might Also Like