স্বাধীন রাষ্ট্র: জাতিসংঘে চূড়ান্ত প্রস্তাব উপস্থাপন করছে ফিলিস্তিন

স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি পেতে জাতিসংঘে চূড়ান্ত প্রস্তাব পেশ করছে ফিলিস্তিন।

ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষ সোমবার এই প্রস্তাবটি জাতিসংঘে উপস্থাপন করছে বলে জানা গেছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্স এক প্রতিবেদনে এ খবর দিয়েছে।

এতে বলা হয়, এক বছরের মধ্যেই ইসরায়েলের সঙ্গে শান্তি আলোচনায় বসার বিষয়টিও ওই প্রস্তাবনায় রেখেছে ফিলিস্তিন।

পাশাপাশি প্রস্তাবনায় ফিলিস্তিন জানিয়েছে, ২০১৭ সালের মধ্যে ফিলিস্তিন ভূখণ্ড অধিগ্রহণের অবসান দেখতে চায় তারা।

ইসরায়েল ও তার মিত্রদেশ যুক্তরাষ্ট্র না চাইলেও এই উদ্যোগ বাস্তবায়নে নিয়মিত চাপ দিতে থাকবেন বলে মন্তব্য করেছেন ফিলিস্তিন প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস।

এমনকি, ফিলিস্তিনের বার্তা সংস্থা ওয়াফা জানিয়েছে, আব্বাস তার অবস্থান জানাতে ফোনও করেছিলেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরিকে।

ফিলিস্তিনের জ্যেষ্ঠ এক কর্মকর্তা সায়েব এরাকাত রয়টার্সকে বলেছেন, ‘আজ (সোমবার) নিউইয়র্কে আরব গ্রুপের সভা। সেই সভায় (জাতিসংঘের) নিরাপত্তা পরিষদে আমরা চূড়ান্ত প্রস্তাবনাটি পেশ করছি।’

সায়েব বলেন, ‘দুটো স্বাধীন সার্বভৌম, গণতান্ত্রিক ও নিরাপদ রাষ্ট্রের কথা বলেছি আমরা। এক. ফিলিস্তিন ও দুই. ইসরায়েল।’

সায়েব আরও বলেন, ‘আশা করছি, আগামীকাল কিংবা তার পরের দিন এই প্রস্তাবনার পক্ষে ভোটাভুটিও হবে।’

প্রসঙ্গত, এর আগে ইউরোপের কয়েকটি দেশ ফিলিস্তিনকে স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে স্কীকৃতি দেওয়ার ব্যাপারে নিজেদের ইতিবাচক অবস্থান প্রকাশ করেছে।

১৩ অক্টোবর ভোট দিয়ে ফিলিস্তিনকে একটি স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দেন ব্রিটিশ সংসদ সদস্যরা।

ইসরায়েলী বর্বরতা থেকে স্বাধীনতা পেতে দীর্ঘদিন ধরে যে সংগ্রাম করে আসছে ফিলিস্তিনিরা, ৩০ অক্টোবর সেই সংগ্রামকে স্বীকৃতি জানায় সুইডেন।
সর্বশেষ ২ ডিসেম্বর সংসদে এই দাবির পক্ষে ভোটাভুটি হয়। এবং সেদিন ফিলিস্তিনকে স্বাধীন হিসেবে স্বীকৃতি দেয় ফ্রান্স।

You Might Also Like