সীতাকুণ্ডে অজ্ঞাত রোগে আরো ৭ শিশু আক্রান্ত

সীতাকুণ্ডের সোনাইছড়ির দুর্গম ত্রিপুরা পাড়া এলাকায় অজ্ঞাত রোগে ৯ শিশুর মৃত্যু ও প্রায় অর্ধশতাধিক শিশুকে হাসপাতালে ভর্তির পর শুক্রবার একই এলাকায় নতুন করে আরো সাত শিশু আক্রান্ত হয়েছে।

বার আউলিয়া পাহাড়ের ত্রিপুরা পাড়ায় নতুন করে আক্রান্ত শিশুদের আজ দুপুরে সীতাকুণ্ডের ফৌজদারহাট বিআইটিআইডি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন আজিজুর রহমান সিদ্দিকী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

নতুন করে আক্রান্ত শিশুরা হচ্ছে- তৌফিক কুমার ত্রিপুরা (৪), মধু কুমার (৮), গীতা বাবু (১৪), শিমুল (২), হৃদয় (১০), রিমন (৪) ও রত্না (৮)। এই সাত শিশু নিয়ে সীতাকুণ্ডে অজ্ঞাত রোগে সর্বমোট আক্রান্তের সংখ্যা ৬৩ জন বলে জেলা সিভিল সার্জন দপ্তর সূত্রে জানা গেছে। এর আগে গত বুধবার পর্যন্ত এই এলাকায় ৯ শিশুর মৃত্যু ঘটে।

চট্টগ্রাম জেলার সিভিল সার্জন আজিজুর রহমান সিদ্দিকী বলেন, রোগটি এখনো শনাক্ত করা না গেলেও এ নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কারণ নেই। যে সব শিশু আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে তারা অভিভাবকদের অসতর্কতায় তাৎক্ষণিকভাবে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা না পাওয়ার কারণেই দুর্ভাগ্যজনকভাবে মারা গেছে।

এইখানে অসু্স্থ ও মৃত সবাই প্রচণ্ডরকম অপুষ্টিজনিত রোগে ভুগছিল। আক্রান্ত হওয়ার পর যাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে তাদের ভাল পুষ্টিকর খাবার দেওয়ার পর তারা সবাই ক্রমশ সুস্থ হয়ে উঠছে। আক্রান্ত এলাকায় এখন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মেডিক্যাল টিম কাজ করে যাচ্ছে বলে সিভিল সার্জন জানান।

এদিকে শুক্রবার সকাল থেকে দিনভর ত্রিপুরা পল্লীতে পুষ্টিকর খাবার ও ত্রাণ বিতরণ করেছে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন। ত্রাণ সামগ্রীর মধ্যে ছিল চাল, আলু, তেল, ডাল, পেঁয়াজ, ডিম, দুধসহ অন্যান্য জিনিসপত্র। ত্রিপুরা পরিবারের মধ্যে এসব ত্রাণ বিতরণ করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাজমুল ইসলাম ভুইয়া।

এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন চেয়ারম্যান মনির আহমেদ, এনামুল হক চৌধুরী, মেম্বার নাসির উদ্দিন ও মোহাম্মদ আযম।

You Might Also Like