সিরীয় শরণার্থীদের ফেরত পাঠাব : ট্রাম্প

সিরিয়া থেকে যেসব শরণার্থী যুক্তরাষ্ট্রে এসেছে, প্রেসিডেন্ট পদে নির্বাচিত হলে তাদের দেশে ফেরত পাঠানোর ঘোষণা দিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি রিপাবলিকান দল থেকে ২০১৬ সালে প্রেসিডেন্ট পদে লড়াইয়ের জন্য চেষ্টা করছেন। এই মুহূর্তে এই দল থেকে তিনি জনপ্রিয়তায় সম্ভাব্য অন্য প্রার্থীদের চেয়ে এগিয়ে আছেন।

ট্রাম্প হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন, সিরিয়া থেকে যেসব শরণার্থী এসেছে, তারা ইসলামিক স্টেটের (আইএস) সদস্য হতে পারে। ফলে তাদের আশ্রয় দেওয়া উচিত নয়। নিউ হ্যাম্পশায়ারে একটি সমাবেশে বক্তব্য দেওয়ার সময় এ কথা বলেন ট্রাম্প।

শরণার্থীদের ফেরত পাঠানোর বিষয়ে উপস্থিত জনতার সামনে অঙ্গীকার করেছেন ট্রাম্প। তার বক্তব্য ছিল এ রকম, ‘গণ-অভিবাসনের সুযোগ নিয়ে সিরিয়ার যেসব লোক এখানে (যুক্তরাষ্ট্রে) আসছে, তাদের উদ্দেশে আমি বলতে চাই, যদি আমি জিতি, যদি আমি জিতি, তাদের ফিরে যেতে হবে, তাদের ফিরে যেতে হবে।’

সিরীয় শরণার্থীদের দেশে ফেরত পাঠানোর বিষয়ে ট্রাম্প খুবই শক্ত অবস্থানে আছেন। যা তার বক্তব্য থেকেই বোঝা যাচ্ছে। তিনি দুটি বাক্য দুই বার করে উচ্চারণ করেছেন¬- ‘যদি আমি জিতি, এবং তাদের ফিরে যেতে হবে।’

ট্রাম্প এমন দিনে সিরীয় শরণার্থীদের নিয়ে এই বক্তব্য দিলেন, যখন সিরিয়ার মধ্য ও পশ্চিমাঞ্চলের কয়েকটি টার্গেটে বুধবার বিমান হামলা চালিয়েছে রাশিয়া।

সিরিয়ায় রাশিয়ার হামলা সম্পর্কে ট্রাম্প বলেছেন, রাশিয়া যদি যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে যৌথভাবে কাজ করে, তাহলে তা ভালো হবে। কিন্তু রাশিয়া যদি একাই সেখানে যুদ্ধ করে এবং স্থিতিশীলতা নষ্ট করে, তবে ২ লাখ শরণার্থীকে গ্রহণ করতে হবে যুক্তরাষ্ট্রের।

শরণার্থীদের বিষয়ে তিনি আরো বলেন, আমরা সিরীয় শরণার্থীদের পরিচয় জানি না। তারা আইএসের সদস্য হতে পারে। শুধু প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার দুর্বলতার জন্যই সিরীয় শরণার্থীরা যুক্তরাষ্ট্রে ঢোকার সুযোগ পেতে যাচ্ছে।

উল্লেখ্য, সিরিয়া গৃহযুদ্ধে এ পর্যন্ত প্রায় ২ লাখ ৫০ হাজার লোক নিহত হয়েছে। বাস্তুচ্যুত হয়েছে প্রায় ৮০ লাখ মানুষ। শরণার্থী হিসেবে বিভিন্ন দেশে আশ্রয় নিয়েছে প্রায় ৪০ লাখ সিরীয়।

You Might Also Like