হোম » সিরিয়ায় রুশ ঘাঁটিতে ড্রোন হামলা; আমেরিকাকে সন্দেহ করছে মস্কো

সিরিয়ায় রুশ ঘাঁটিতে ড্রোন হামলা; আমেরিকাকে সন্দেহ করছে মস্কো

ঢাকা অফিস- Wednesday, January 10th, 2018

সিরিয়ায় রুশ নৌ ও বিমান ঘাঁটিতে হামলা প্রচেষ্টার সঙ্গে আমেরিকা জড়িত থাকতে পারে বলে সন্দেহ করছে রাশিয়া। রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, গত শনিবার সিরিয়ার লাতাকিয়া প্রদেশে হেমেইমিম বিমানঘাঁটি এবং তারতুস নৌঘাঁটিতে ১৩টি ড্রোনের সাহায্যে হামলার ব্যর্থ চেষ্টার সময় এর আশেপাশে মার্কিন গোয়েন্দা বিমানের উপস্থিতি ছিল। এর ফলে ড্রোন হামলা প্রচেষ্টায় আমেরিকার জড়িত থাকার আশঙ্কা আরও বেড়েছে।

ওই বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, ড্রোন হামলার জন্য যেসব তথ্য-উপাত্ত প্রয়োজন হয় তা কেবল উপগ্রহ পরিচালনাকারী উন্নত দেশের কাছেই থাকা সম্ভব। এছাড়া জিপিএস ব্যবহার করে ড্রোনকে সঠিকভাবে নিয়ন্ত্রণের মাধ্যমে সুনির্দিষ্ট স্থানে হামলার জন্য যে কারিগরি দক্ষতা ও কৌশল প্রয়োজন হয় সেটাও কেবল উন্নত দেশের মাধ্যমেই অর্জন করা সম্ভব বলে রাশিয়া উল্লেখ করেছে।

সিরিয়ায় তৎপর সন্ত্রাসীদের কাছে ড্রোন হামলা পরিচালনার প্রযুক্তি হস্তান্তর করা হয়েছে বলে রাশিয়া মনে করছে। রাশিয়া আরও বলেছে, ড্রোন হামলার একই সময়ে রুশ ঘাঁটির কাছে মার্কিন গোয়েন্দা বিমানের উপস্থিতি বিস্ময়কর।

তবে ওই হামলার পরপরই আমেরিকা তাদের সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে। মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, দায়েশ এ হামলা চালিয়ে থাকতে পারে। তবে দায়েশ এখন পর্যন্ত ওই হামলার দায় স্বীকার করে নি।

গত শনিবার রাতে সন্ত্রাসীরা অন্তত ১৩টি ড্রোন দিয়ে রাশিয়ার বিমান ও নৌ ঘাঁটির ওপর আগ্রাসন চালানোর চেষ্টা করে। রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, নিরাপদ দূরত্বে থাকতেই বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার মাধ্যমে ড্রোনগুলোকে শণাক্ত করা হয় এবং পানজির-এস ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে সাতটি ড্রোন ভূপাতিত করা হয়।