সিরিয়ায় তুরস্কের অভিযানে জার্মান ট্যাংকার, জার্মানির আপত্তি

সিরিয়ায় কুর্দিদের বিরুদ্ধে অভিযানে জার্মানি থেকে আমদানি করা লিওপার্ড ট্যাংক ব্যবহার করায় তুরস্কের কাছে অস্ত্র রপ্তানি বন্ধ করতে জার্মান সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির আইনপ্রণেতারা।

জার্মানির রাজনীতিকরা সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে, তুরস্কের কাছে রপ্তানি করা ট্যাংকার আধুনিকায়নের যেকোনো চুক্তি স্থগিত করা হোক।

জার্মানি ও তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা দুই দেশের মধ্যকার সম্পর্ক জোরদারের ঘোষণা দেওয়ার কয়েক সপ্তাহ পরই তুরস্কের বিরুদ্ধে জার্মানিতে ব্যাপক আপত্তি উঠল। অবশ্য সাম্প্রতিক বছরগুলোতে এই দুই ন্যাটো সদস্যের মধ্যে তিক্ত সম্পর্ক বিরাজ করছিল।

তুরস্কের নেতৃত্বাধীন বাহিনী শনিবার সিরিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় শহর আফরিনে সিরীয় কুর্দি বাহিনী ওয়াইপিজের বিরুদ্ধে হামলা শুরু করেছে। আফরিন থেকে ওয়াইপিজে-কে বিতাড়িত করতেই এ অভিযান শুরু করেছে তুরস্ক।

শুক্রবার গণমাধ্যমে বলা হয়, জার্মানির অস্ত্রনির্মাতা প্রতিষ্ঠান রেইনমেটালের কাছ থেকে নেওয়া লিওপার্ড-২ ট্যাংক আধুনিকায়নের যে অনুরোধ করেছে তুরস্ক, তা অনুমোদনের উদ্যোগ নিয়েছে জার্মান সরকার। এ ধরনের ট্যাংক সিরিয়ায় জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের (আইএস) বিরুদ্ধে তুরস্ক ব্যবহার করছে বলে মনে করা হয়।

কিন্তু প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞরা জার্মান গণমাধ্যমে দাবি করেছে, সিরিয়ায় কুর্দি যোদ্ধাদের বিরুদ্ধে তুরস্কের ‘অপারেশন অলিভ ব্রাঞ্চ’-এ জার্মানির লিওপার্ড ট্যাংক ব্যবহার করা হচ্ছে। এরপর জার্মানির বাম ও ডানপন্থি রাজনীতিকরা ট্যাংক আধুনিকায়নের চুক্তি অনুমোদনের বিরুদ্ধে কণ্ঠ তুলেছেন। সিরিয়ায় তুরস্কের অভিযান সম্পর্কে সরকারের অবস্থান পরিষ্কার করতেও আহ্বান জানিয়েছেন তারা।

তবে সিরিয়ায় তুরস্কের অভিযান নিয়ে আগেই উদ্বেগ প্রকাশ করেছে জার্মানি। জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী সিগমার গ্যাব্রিয়েল সোমবার তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে উদ্বেগ প্রকাশ করেন, এই অভিযানে যেন বেসামরিক লোকজনের ক্ষয়ক্ষতি না হয়।

তথ্যসূত্র : বিবিসি অনলাইন

You Might Also Like