সিরিজের শেষ টি-২০ ম্যাচ আজ

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দুই ম্যাচ টি-টোয়েন্টির শেষ ম্যাচ আজ। এই ম্যাচ দিয়েই বাংলাদেশ সফর শেষ করবে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট দল। আর আগামীকাল দেশের উদ্দেশ্য ঢাকা ছাড়বে দলটি। তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার পর এবার টি-টোয়ন্টি সিরিজেও সফরকারী জিম্বাবুয়েকে হোয়াইটওয়াশ করার পালা টাইগারদের। বাংলাদেশ সফরে একের পর এক ম্যাচ হেরে শেষ ম্যাচেও কোন আশার আলো নেই দলটির সামনে। তার পরও শেষ ম্যাচে একটি সান্ত্বনার জয় বেশি দরকার দলটির জন্য। আর এই আশায়ই শেষ ম্যাচে মাঠে নামবে দলটি।

ওয়ানডে সিরিজের প্রতিটি ম্যাচেই জিম্বাবুয়েকে বড় ব্যবধানে হারানোর পর টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচেও বড় জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। ফলে শেষ ম্যাচে জয় নিয়ে টি-টোয়েন্টি সিরিজেও জিম্বাবুয়েকে হোয়াইটওয়াশ করার টার্গেট নিয়ে আজ মাঠে নামছে টাইগাররা। মিরপুর স্টেডিয়ামে বিকাল পাঁচটায় শুরু হবে ম্যাচটি। বাংলাদেশ টেলিভিশন ও জিটিভি ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার হবে।

ওয়ানডের মতো টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটেও বাংলাদেশ যে ফেভারিট তা প্রথম ম্যাচেই প্রমাণ করেছে টাইগাররা। কারণ প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচে আগে ব্যাট করে জিম্বাবুয়ে যেখানে তিন বল আগে অল আউট হয়েছে ১৩১ রানে। সেখানে ১৩২ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ১৪ বল বাকি থাকতে বাংলাদেশ ১৩৬ রান করে ম্যাচ জিতেছে ৪ উইকেটে। অবশ্য এই ফরম্যাটে শক্তি আর পরিসংখ্যানে বাংলাদেশের চেয়ে অনেক পিছিয়ে সফরকারীরা। বাংলাদেশ আর জিম্বাবুয়ে যদিও টি-টোয়েন্টিতে বেশি ম্যাচে মুখোমুখি হওয়ার সুযোগ পায়নি। মাত্র চারটি ম্যাচ হয়েছে দল দু’টির মধ্যে। এতে এগিয়ে বাংলাদেশই। কারণ চার ম্যাচের মধ্যে বাংলাদেশ ৩টি আর জিম্বাবুয়ে একটি ম্যাচে জয় পেয়েছে।

এছাড়া শেষ ম্যাচে আজ মাঠে নামার আগে মানসিকভাবে বাংলাদেশ দল যতটা উজ্জীবিত ঠিত ততটাই হতাশ জিম্বাবুয়ে দল। তারপরও শেষ ম্যাচে জয়ের টার্গেট নিয়ে আজ মাঠে নামছে দু-দলই। কারণ ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হওয়া জিম্বাবুয়ে টি-টোয়েন্টি সিরিজে একটি জয় নিয়ে দেশে ফিরতে চায়। যদিও কাজটি কঠিন জিম্বাবুয়ের জন্য। কারণ শেষ ম্যাচেও টাইগারদের টার্গেট জয় দিয়ে সিরিজ শেষ করা। সে জন্য শেষ ম্যাচেও জিম্বাবুয়েকে হাল্কাভাবে নিচ্ছে না বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়েকে কঠিন প্রতিপক্ষ ভেবেই মাঠে নামছে মাশরাফিরা। শেষ ম্যাচে আজ টাইগার দলে পরিবর্তন আনার সম্ভাবনা কম।

প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচের দল নিয়েই মাঠে নামছে বাংলাদেশ। কারণ দলের এই উইনিং কম্বিনেশন ঠিক রাখতে চান টিম ম্যানেজমেন্ট। অবশ্য জিম্বাবুয়েও প্রথম ম্যাচের দল নিয়ে মাঠে নামতে পারে। কারণ ম্যাচে হারলেও দলটি এই ম্যাচে ভালোই করেছিল। বিশেষ করে ওয়ালার। কারণ ওয়ালার ৩১ বলে ৬৮ রানের ইনিংসটি টাইগারদের মনে একটু হলেও ভয় জাগাতে পেরেছে। আর দলের স্কোরও নিয়ে গেছে ১৩১ রানে। যদিও ওয়ালার ইনিংস বাদ দিলে জিম্বাবুয়ের পক্ষে অন্য কোন ক্রিকেটার মোটেও ভারো করতে পারেনি। তবে আজ শেষ ম্যাচে একটি সান্ত্বনার জয় পেতে জিম্বাবুয়ে মাঠে সর্বশক্তি নিয়েই মাঠে নামবে। তবে শেষ ম্যাচে যাতে কোন অঘটন না ঘটে এটা মাথায় নিয়েই মাঠে নামবে বাংলাদেশ দল।

You Might Also Like