হোম » সান ম্যারিনোর সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্কের খসড়া অনুমোদন

সান ম্যারিনোর সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্কের খসড়া অনুমোদন

ঢাকা অফিস- Monday, May 15th, 2017

বাংলাদেশ ও সান ম্যারিনোর সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনসংক্রান্ত খসড়া অনুসমর্থনের প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

সোমবার দুপুরে সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এ অনুমোদন দেওয়া হয়। বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সভাপতিত্ব করেন।

মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, সান ম্যারিনো খুব বেশি পরিচিত না হলেও এটি অনেক পুরনো দেশ। এটি ইটালির মধ্যে ছোট একটি দেশ। এ দেশটির বয়স প্রায় ২ হাজার বছর। ১৯৯২ সালে জাতিসংঘের সদস্যপদ লাভ করে দেশটি।

তিনি বলেন, জাতিসংঘের সদস্য হিসেবে এই দেশের সঙ্গে আমাদের কূটনৈতিক সম্পর্ক হতে পারে। কিন্তু তাদের সংবিধানে একটি প্রভিশন আছে, যে দেশের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করবে তা ফরমালি (আনুষ্ঠানিকভাবে) ও বাই-ল্যাটারাল (দ্বিপাক্ষিক) করতে হবে। আজ মন্ত্রিসভায় অনুসমর্থন দেওয়ায় দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক স্থাপন হবে।

তিনি আরো বলেন, দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক স্থাপন হলে বড় সুবিধাটা হলো- যখন ভোটাভুটির বিষয় হয়, তখন ছোট দেশগুলো আমাদের সমর্থন দেয়। আমাদের সাপোর্টার হিসেবে কাজে লাগবে।

সান ম্যারিনোর সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনে চুক্তির প্রক্রিয়া ২০০৮ সাল থেকে শুরু হয়ে তা ২০১৭ সালে অনুমোদন পেল বলে জানান তিনি।

কূটনৈতিক সম্পর্কে বাংলাদেশের বাণিজ্যিকভাবে লাভবান হওয়ার সম্ভাবনা কতটুকু জানতে চাইলে তিনি বলেন, ইউরোপের সার্ভিস সেক্টরে এদের প্রভাব অনেক বেশি। এদের ইন্ডাস্ট্রিও ভাল। আমরা লাভবান হওয়াটাই খুব স্বাভাবিক। আমাদের শিল্পের আমদানি-রপ্তানি দুটোই হতে পারে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, দেশটির আকার ৬১ দশমিক ২ বর্গকিলোমিটার মাত্র। এর জনসংখ্যা ৩০ হাজার। এদেশের মাথাপিছু আয় ৫৫ হাজার ৪৪৯ মার্কিন ডলার। এদেশের ৪০ শতাংশ শিল্প, ৬০ শতাংশ হচ্ছে সেবা খাত। এদের ১ শতাংশের মতো কৃষি থেকে আসে। এটা খুবই উন্নত একটা দেশ বলে জানান তিনি।