সাংবাদিক মাহফুজউল্লাহ ও আনোয়ারুক হক স্মরণে নিউইয়র্কে শোক

সালাহউদ্দিন আহমেদ : সদ্য প্রয়াত বিশষ্ট সাংবাদিক, লেখক ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব মাহফুজ উল্লাহ ও ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ)-এর সাবেক সভাপতি আনোয়ারুল হকের মৃত্যুতে নিউইয়র্ক বাংলাদেশ প্রেসক্লাব আয়োজিত শোক সভায় বক্তারা বলেছেন, বাংলাদেশের সাংবাদিকতা পেশায় তারা ছিলেন আদর্শবাদী সাংবাদিক। প্রকৃত অর্থেই পেশাদার সাংবাদিক। তারা কোন কোন রাজনৈতিক মতাদর্শে বিশ্বাস করলেও সাংবাদিকতায় রাজনীতিমুক্ত থাকতেন। যা দেশের বর্তমান প্রেক্ষাপটে ভাবাই যায় না। বক্তারা বলেন, দেশ-বিদেশের সাংবাদিকতায় তাঁদের আদর্শ আনুকরণীয়, অনুস্মরণীয়। খবর ইউএনএ’র।

নিউ ইয়র্ক সিটির জ্যাকসন হাইটস পালকী পার্টি সেন্টারে গত ৩০ এপ্রিল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সাংবাদিক মাহফুজউল্লাহ ও আনোয়ারুল হক স্মরণে এই শোক সভার আয়োজন করা হয়। নিউইয়র্ক বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও ডিআরইউ-এর সাবেক সাধারণ সম্পাদক মনোয়ারুল ইসলামের সভাপতিত্বে আয়োজিত সভার শুরুতে মরহুম সাংবাদিকদ্বয় স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। এছাড়াও তাদের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনায় বিশেষ মোনাজাত করা হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন প্রবীণ সাংবাদিক ও এখনসময় সম্পাদক কাজী শামসুল হক।

শোক সভায় বক্তব্য রাখেন প্রবীণ সাংবাদিক সৈয়দ মোহাম্মদ উল্লাহ, আমেরিকা-বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সাবেক সাবেক সভাপতি কাজী শামসুল হক, সাপ্তাহিক আজকাল সম্পাদক ও প্রেসক্লাবের উপদেষ্টা মনুজুর আহমদ, বিশিষ্ট সাংবাদিক ও প্রেসক্লাবের উপদেষ্টা মঈনুদ্দীন নাসের, প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি মাহবুবুর রহমান, সাপ্তাহিক বাংলা পত্রিকা’র সম্পাদক ও টাইম টেলিভিশন-এর সিইও এবং প্রেসক্লবের সাবেক সভাপতি আবু তাহের, সাপ্তাহিক ঠিকানা’র প্রধান সম্পাদক মুহাম্মদ ফজলুর রহমান, প্রবীণ ফটো সাংবাদিক লুৎফর রহমান বিনু, সাপ্তাহিক জন্মভূমি সম্পাদক রতন তালুকদার, জাস্ট নিউজ বিডি ডট কম সম্পাদক মুশফিকুল ফজল আনসারী, বিশিষ্ট সাংবাদিক মনির হায়দার ও মুজাহীদ আনসারী, ভয়েস অব আমেরিকা (ভিওএ)-এর নিউইয়র্ক প্রতনিধি আকবর হায়দার কিরণ, আমেরিকা-বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শওকত ওসমান রচি, যমুনা টিভি’র যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি ও সাপ্তাহিক আজকাল-এর সহযোগী সম্পাদক হাসানুজ্জামান সাকী, মুক্তিযোদ্ধা মীর মশিউর রহমান, অধ্যাপিকা হুসনে আরা বেগম ও কমিউনিটি অ্যাক্টিভিষ্ট জাকির হোসেন বাচ্চু। সভা পরিচালনা করেন প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শিবলী চৌধুরী কায়েস।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে সাপ্তাহিক বর্ণমালা সম্পাদক ও নিউইয়র্ক বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি মাহফুজুর রহমান, প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শেখ সিরাজুল ইসলাম ও এবিএম সালাহউদ্দিন আহমেদ, যুগ্ম সম্পাদক আলমগীর সরকার, কোষাধ্যক্ষ মমিনুল ইসলাম মজুমদার, টাইম টেলিভিশন-এর অন্যতম পরিচালক (কমিউনিটি অ্যাফেয়ার্স) সৈয়দ ইলিয়াস খসরু, বাংলা ভিশন-এর নিউইয়র্ক প্রতিনিধি নিহার সিদ্দিকী, প্রথম আলো (উত্তর আমেরিকা)-এর মঞ্জুরুল হক, সপ্তাহিক জনতার কন্ঠ’র চেয়ারম্যান শামসুল আলম, সাংবাদিক মাহাথির ফারুকী, ফটো সাংবাদিক স্বপন হাই ও শাহ জে চৌধুরী, সাংবাদিক তোফাজ্জল লিটন, কমিউনিটি অ্যাক্টিভিষ্ট মোহাম্মদ ফজলে আলী কচি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সভায় বক্তারা মরহুম সাংবাদিক মাহফুজউল্লাহ ও আনোয়ারুল হক-এর স্মৃতিচারণ করে বলেন, ব্যক্তিগত জীবনে তারা উভয়েই সৎ, জ্ঞানী আর ভালো মনের মানুষ ছিলেন। তারা চিন্তা-চেতনায় আর মননে এবং কর্মকান্ডে পরিপূর্ণ সাংবাদিক ছিলেন। তাদের তুলনা তারা নিজেই। লেখাপড়ায় ছিলেন পন্ডিত সমতুল্য।

সভায় বক্তারা প্রসঙ্গক্রমে বলেন, বাংলাদেশের গণতন্ত্র, বাক স্বাধীনতা, সাংবাদপত্রের স্বাধীনতা পরিপূর্ণভাবে ভোগ করতে চাইলে সাংবাদিকদের চাটুকারিতা বন্ধ করতে হবে, সরকারের উপঢৌকন হিসেবে পদ-পদবীর লোভ ছাড়তে হবে, জমির প্লট, বাড়ী-গাড়ীর লোভ ছাড়তে হবে। সাংবাদিকতায় পেশাদারিত্বকে সর্বার্ধিক গুরুত্ব দিতে হবে। পাশাপাশি রাজনীতিতে পরমসহিষ্ণুতা থাকতে হবে। বিরোধী মত প্রকাশের অধিকার দিতে হবে। সর্বপূরি সাংবাদিক মাহফুজউল্লাহ ও আনোয়ারুল হকের মতো সাংবাদিকদের আদর্শ অনুস্মরণ করতে হবে। -ইউএনএ.

 

You Might Also Like