সরকারের নেয়া পদক্ষেপের তীব্র নিন্দা এইচআরডব্লিউর

বাংলাদেশের প্রধান বিরোধী দল বিএনপি ও জামায়াতে ইসলামীর কর্মকাণ্ডে বল প্রয়োগে বাধা দেয়া ও তাদের রাজনৈতিক অধিকার খর্ব করতে সরকারের নেয়া পদক্ষেপের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (এইচআরডব্লিউ)।
একই সঙ্গে গণমাধ্যমের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ বন্ধেও সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে মানবাধিকার সংগঠনটি। বিএনপি ও জামায়াতে ইসলামীর বিরুদ্ধে বলপ্রয়োগ অবিলম্বে বন্ধের আহ্বান জানিয়েছে এইচআরডব্লিউ। বিভিন্ন গণমাধ্যমে বলা হচ্ছে, সরকারের এহেন আচরণ দেশে বিদ্যমান উত্তেজনা ও অস্থিরতাকে আরও বাড়িয়ে দেবে।
বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে আজ হিউম্যান রাইটস ওয়াচের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বিরোধী দলগুলোর বিরুদ্ধে অতিরিক্ত বলপ্রয়োগ ও দলগুলোর সদস্যদের ইচ্ছামাফিক গ্রেপ্তার বন্ধ এবং গণমাধ্যমের ওপর থেকে আরোপিত বিধিনিষেধ প্রত্যাহার করুন।
এইচআরডব্লিউ’র এশিয়া অঞ্চলের পরিচালক ব্র্যাড অ্যাডামস বলেন, সরকারের নির্বিচার বল প্রয়োগ, ইচ্ছামাফিক গ্রেপ্তার ও গণমাধ্যমের ওপর আরোপিত বিধিনিষেধ বিরাজমান উত্তেজনাকর পরিস্থিতিকে আরও বাড়িয়ে তুলবে। এদিকে বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে গ্রেপ্তারের নিন্দা জানিয়েছে এইচআরডব্লিউ।
একুশে টেলিভিশনের চেয়ারম্যান আবদুস সালামের গ্রেপ্তার ইস্যুতে এইচআরডব্লিউ বলেছে, বিরোধী দলের প্রতি সহানুভূতিশীল মনে করায় কর্তৃপক্ষ গণমাধ্যমকে টার্গেট করেছে। অ্যাডামস বলেন, জনগণের নিরাপত্তাবিধানে দায়বদ্ধ কর্তৃপক্ষ। তবে সেটা এমনভাবে করা উচিত, যা মানবাধিকার ও আইনের শাসনকে জানালার বাইরে ছুঁড়ে না ফেলে। ব্র্যাড অ্যাডামস বলেন, নিজেদের গণতান্ত্রিক দাবি করে এমন সরকারের কাছ থেকে একটি টেলিভিশনের স্বত্বাধিকারীকে গ্রেপ্তার এবং টিভি চ্যানেল বন্ধ করে দেয়ার বিষয়টি গ্রহণযোগ্য নয়। ৫ই জানুয়ারির নির্বাচনের প্রথম বর্ষপূর্তিকে কেন্দ্র করে দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি ফের উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে।
আওয়ামী লীগ ‘গণতন্ত্র রক্ষা’ ও বিএনপি ‘গণতন্ত্র হত্যা’ দিবস হিসেবে দিনটিকে চিহ্নিত করেছে। পুলিশের কড়া প্রহরায় বিএনপি’র চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে তার কার্যালয়ে অবরুদ্ধ করে রাখায় সে পরিস্থিতি আরও ঘোলাটে আকার ধারণ করে। সম্প্রতি সারা দেশে বিএনপি ও জামায়াতে ইসলামীসহ বিরোধী দলগুলোর শ’ শ’ কর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কোন কারণ দর্শানো ব্যতিরেকে বিএনপির সিনিয়র ভাইস-চেয়ারম্যান তারেক রহমানের কোন রাজনৈতিক বক্তব্য প্রচারেও দেশের সব গণমাধ্যমের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে সরকার।

You Might Also Like