সন্ত্রাসে অর্থায়ন প্রতিরোধে সতর্ক থাকার নির্দেশ

ব্যাংকিং চ্যানেলের (মোবাইল ব্যাংকিংসহ) মাধ্যমে কোনোভাবেই যেন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে অর্থায়ন না হয় সে বিষয়ে ব্যাংকগুলোকে ‘বিশেষভাবে’ সতর্ক করলো বাংলাদেশ ব্যাংক।

মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় ব্যাংকের জাহাঙ্গীর আলম কনফারেন্স হলে আয়োজিত এক সভায় সব তফসিলি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের এ বিষয়ে সতর্ক করা হয়।

সভা শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিং করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর আবু হেনা মোহাম্মদ রাজি হাসান।

তিনি বলেন, ‘১১ ফেব্রুয়ারির (বুধবার) মধ্যে ব্যাংকগুলোর সব শাখায় এ বিষয়ে একটি করে চিঠি দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে। চিঠির ব্যাপারে আবার ব্যাংকের সব কর্মকর্তাদের অবহিত করতেও বলা হয়েছে।’

এ নির্দেশ অমান্য করলে অর্থদণ্ডসহ চাকরি থেকে বরখাস্তের মত সিদ্ধান্তও নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন এ ডেপুটি গভর্নর।

বর্তমান পরিস্থিতিতে আইন-প্রয়োগকারী সংস্থার কিছু অভিযোগের (তবে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ নয়) ভিত্তিতেই এ নির্দেশনা দেয়া হয়েছে বলেও জানান রাজি হাসান।

তিনি বলেন, ‘তারা এ বিষয়টি ঠিকভাবে করছে কিনা তা আবার বাংলাদেশ ব্যাংক মানিটরিং করবে। আর ঝুকিপূর্ণ জায়গার যেসব ব্যাংকের ব্রাঞ্চ আছে সেগুলো বিগত ছয় সালের লেনদেন যাচাই করে আগামী মার্চের মধ্যে স্ব স্ব ব্যাংকের মানিলন্ডারিং বিভাগ থেকে প্রতিবেদন বাংলাদেশ ব্যাংকে দাখিল করতে বলা হয়েছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘বাংলাদেশের মানিলন্ডারিং ও সন্ত্রাসে অর্থায়ন প্রতিরোধ ব্যবস্থা মূল্যায়নের জন্য এজিপির চলমান মিউচ্যুয়াল ইভ্যালুয়েশন আছে। এর জন্য শাখা পরিদর্শন, সব কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ প্রদান, ঝুকিভিত্তিক মানিলন্ডারিং ও সন্ত্রাসে অর্থায়ণ ঝুকি ব্যবস্থাপনা এবং জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের বিভিন্ন রেজুলেশনের পূর্ণ বাস্তবায়ন নিশ্চিতকরণে কয়েকটি সময়সীমা আছে। এসময় অনুযায়ী কাজ শেষ করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।’ তবে এসব বিষয়ে কোনো অবস্থাতেই আর সময় বাড়ানো হবে না বলে জানান তিনি।

You Might Also Like