শ্রীলংকায় এমপিদের মারামারি

পার্লামেন্টের ভেতরে হাতাহাতি করেছেন শ্রীলংকার এমপিরা। আহত এক এমপিকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছেন গার্ডিয়ান অনলাইন।

বুধবার পার্লামেন্টে নতুন প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপাকসে ও তার সরকারের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব পাশ হওয়ার পরদিন বৃহস্পতিবার স্পিকার বৃহস্পতিবার পার্লামেন্টে জানান, শ্রীলঙ্কায় এখন কোনো প্রধানমন্ত্রী কিংবা মন্ত্রিপরিষদ নেই। এসময় প্রেসিডেন্ট সিরিসেনার বরখাস্ত করা প্রধানমন্ত্রী বিক্রমাসিংহের দলের এমপিরা স্পিকার স্পিকার কারু জয়সুরিয়াকে ঘিরে রেখেছিল।

স্পিকারের এ ঘোষণার পর রাজাপাকসের অনুগত এমপিদের সঙ্গে বিক্রমাসিংহের অনুগত এমপিদের ধাক্কাধাক্কি ও হাতাহাতি হয়। বেশ কয়েকজন ঘুষি ছুড়তে দেখা গেছে। এসময় স্পিকারকে লক্ষ্য করে এক এমপি কাগজ চাপা দেওয়ার পাথর ছুড়ে মারেন। এক পর্যায়ে কয়েকজন মেঝেতে পড়ে গেলে বিরোধীরা তাদের লাথি মারেন। স্পিকারের মাইক্রোফোন ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করলে রাজাপাকসের অনুগত এমপি আমুনুগামা জখম হন।

মারামারি অব্যাহত থাকলে স্পিকার, রাজাপাকসে ও বিক্রমাসিংহে পার্লামেন্ট ছেড়ে চলে যান।

বিক্রমাসিংহের দল ইউনাইটেড ন্যাশনাল পার্টির এমপি হর্ষ ডি সিলভা এই সহিংসতার নিন্দা জানিয়ে বলেছেন, ‘এটা ছিল পার্লামেন্টের জন্য সবচেয়ে লজ্জাজনক দিন।’

গত মাসে বিক্রমসিংহকে প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে বরখাস্ত করে ওই পদে মাহিন্দা রাজাপাকসেকে নিয়োগ দেন প্রেসিডেন্ট সিরিসেনা। পরে এক ডিক্রিতে পার্লামেন্ট ভেঙে দিয়ে নতুন নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করেন প্রেসিডেন্ট । বিরোধীরা আদালতে গেলে মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্ট প্রেসিডেন্টের ওই আদেশ স্থগিত করে । এরপর বুধবার পার্লামেন্ট অধিবেশন বসে। সেখানে ২২৫ সদস্যের মধ্যে ১২২জন রাজাপাকসে ও তার সরকারের বিরুদ্ধে আনা অনাস্থা প্রস্তাবে সমর্থন জানায়।

You Might Also Like