শেষ হয়নি সাংবাদিক ফরহাদ খাঁ দম্পতি হত্যার বিচার

চার বছরেও শেষ হয়নি সাংবাদিক ফরহাদ খাঁ ও তার স্ত্রী রহিমা খানমের হত্যা মামলার চূড়ান্ত বিচার। এই হত্যা মামলাটি বর্তমানে উচ্চ আদালতে আপিল বিভাগে বিচারাধীন রয়েছে।

বুধবার হত্যাকাণ্ডের চতুর্থ বর্ষপূর্তিতে এই দম্পতির একমাত্র সন্তান আইরিন পারভিন খানের দাবি, মামলাটির দ্রুত নিষ্পত্তি হোক।

এদিকে মামলার বাদি আব্দুস সামাদ খান বলছেন, এ মামলার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা ক্রমাগত প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে আসছেন।

২০১১ সালের ২৮ সে জানুয়ারি রাজধানীর নয়াপল্টনের বাসা থেকে সাংবাদিক ফরহাদ খাঁ ও তার স্ত্রী রহিমা খানমের গলা কাটা লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

লাশ উদ্ধারের ঘটনায় ফরহাদ খাঁর ছোট ভাই আব্দুস সামাদ খান বাদী হয়ে পল্টন থানায় একটি হত্যামামলা দায়ের করেন।

ফরহাদ খাঁ দৈনিক জনতার সিনিয়র সহকারী সম্পাদক ছিলেন।

হত্যাকাণ্ডের তিনদিনের মাথায় ডিবি পুলিশ নাজিমুদ্দিন ইয়ন ও পরবর্তীতে তার বন্ধু ওশান রাজুকে গ্রেফতার করে। তারা স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে দোষ স্বীকার করে।

মামলাটি দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে পরিচালিত হয়। ২০১২ সালের ১১ অক্টোবর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক দুই আসামির মৃত্যুদণ্ড ঘোষণা করেন।

পরবর্তীতে আসামিরা উচ্চ আদালতে আপিল করে।

প্রধান আসামি নাজিমুজ্জামান ইয়ন সাংবাদিক ফরহাদ খাঁর আপন ভাগ্নে।

তাদের একমাত্র সন্তান আইরিন পারভিন খান সপরিবারে দেশের বাইরে থাকেন।

You Might Also Like