শেখ কামাল স্মৃতি পরিষদের সভায় আব্দুস সোবহান গোলাপ

ইউএনএ : বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক ড. আব্দুস সোবহান গোলাপ এমপি বলেছেন, বাংলাদেশের উন্নয়ন-অগ্রগতি আর পুনরায় বিপুল ভোটে রাষ্ট্র ক্ষমতায় থাকায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ‘ম্যাজিক’ হচ্ছে তাঁর ‘সততা, সুশাসন আর দেশপ্রেম’। তিনি তাঁর ম্যাজিকের গুণেই বাংলাদেশকে বিশ্বের ‘লেস কান্ট্রি থেকে ডেভলেপমেন্ট কান্ট্রি’-তে পরিণত করেছেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশ সরকারের সাফল্যে দেশে-বিদেশে নানা ষড়যন্ত্র চলছে। এজন্য তিনি দেশ ও প্রবাসে চোখ-কান খোলা রেখে সকল ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে শত্রুদের প্রতি সতর্ক থেকে মহান মুক্তিযুদ্ধের আদর্শ সামনে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিষণ ২০২০ সফল করার জন্য দলীয় নেতা-কর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালন ও পবিত্র রমজান উপলক্ষ্যে শেখ কামাল স্মৃতি পরিষদ ইউএসএ আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. আব্দুস সোবহান গোলাপ এসব কথা বলেন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জ্যাকসন হাইটসের পালকি পার্টি সেন্টারে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। স্মৃতি পরিষদের সভাপতি ডা. মাসুদুল হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহবুবুর রহমান, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ, যুগ্ম সম্পাদক আইরীন পারভীন, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রহীম বাদশা, চন্দন দত্ত, দপ্তর সম্পাদক মোহাম্মদ আলী সিদ্দিকী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এম এ সালাম, সাবেক ছাত্রনেতা গোলাম রব্বানী, নিউইয়র্ক মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইমদাদ চৌধুরী, শেখ কামাল স্মৃতি পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ডা. মোহাম্মদ আবু বকর সিদ্দিক প্রমুখ।
অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কুরআন থেকে তেলাওয়াত ও বঙ্গবন্ধু সহ দেশের সকল শহীদের আত্মার মাগফেরাত, দেশ, জাতি ও বিশ্ব মানবতার শান্তি কামনা করে বিশেষ দোয়া করা হয়। দোয়া মুনাজাত পরিচালনা করেন মাওলানা সাইফুল আলম সিদ্দিকি। এছাড়াও শহীদদের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন এবং ফুল দিয়ে ড. গোলাপকে অভিনন্দিত করা হয়। বিশেষ দোয়া আর ইফতার গ্রহণের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে। উল্লেখ্য, বাংলাদেশের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিয়ে প্রথমবারের মতো এমপি নির্বাচিত হয়ে ড. গোলাপ ব্যক্তিবগভাবে যুক্তরাষ্ট্র সফর করছেন।
অনুষ্ঠানে ড. আব্দুস সোবহান গোলাপ বলেন, আমি এক সময় প্রবাসী ছিলাম। ‘জাতির জনক’ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার পর আজকের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও ছয় বছর প্রবাসী ছিলেন। তাই তিনি প্রবাসীদের দু:খ-কষ্ট বুঝেন। আমরা বিদেশ থেকে দেশে ফিরলে প্রধানমন্ত্রী জানতে চান নিউইয়র্ক, লন্ডন, ইউরোপের প্রবাসীরা কেমন আছেন। তিনি বলেন, জনগণের বিপুলা রায়ে আওয়ামী লীগ আবার ক্ষমতায় এসেছে। শেখ হাসিনা চারবারের মতো প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন। জনগনের রায়ে তিনি আমাকে এমপি বানিয়েছেন। তাই আমাদের দায়িত্ব পালনে প্রবাসীদের সহযোগিতা চাই, দোয়া চাই।
ড. গোলাপ বলেন, জিয়া সরকারের সময় ছাত্রদলের রক্তচক্ষু উপক্ষো করে অনেক সংগ্রামের মধ্যদিয়ে সূর্যসেন হল সংসদ সহ, ডাকসুতে ছাত্রলীগের নেতৃত্ব দিয়েছি। আজকের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৯৮১ সালে ঝড়-তুফান উপক্ষো করে বাংলাদেশে প্রত্যাবর্তনের দিন শ্লোগান তুলেছিলাম, নেত্রীকে কথা দিয়েছিলাম। আমরা কথা রেখেছি, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসেছে, ‘জাতির জনক’ বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার হয়েছে, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হয়েছে, পার্বত্য চট্টগ্রামে শান্তি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। আর এসব কর্মকান্ডের মধ্য দিয়ে শেখ হাসিনা বিশ্বনেতায় পরিণত হয়েছে। তিনি শেখ হাসিনা সরকারের ভিষণ ২০২০ সফল করার জন্য সবার সহওেযাগিতা কামনা করেন।
যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক ড. গোলাপ বলেন, সভাপতি শেখ হাসিনার কমিটিই যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের কমিটি। এর বাইরে অন্য কোন কমিটি নেই। আর যারা এই কমিটির বাইরে থেকে মূল আওয়ামী লীগের রাজনীতি করা যাবে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আর সজিব ওয়াজেদ জয়ের সিদ্ধান্ত ও পরামর্শেই যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ পরিচালিত হবে।
অনুষ্ঠানে মোহাম্মদ মারুফ মিয়াকে সংগঠনের সহ সভাপতি এবং এমদাদ চৌধুরী, লুৎফর রহমান ও আজিজুল হক খোকন-কে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে কো-অপ্ট করে এবং তাদেরকে পরিচয় করিয়ে দেয়া হয়।
অনুষ্ঠানে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ, মহিলা লীগ, শ্রমিক লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, নিউইয়র্ক ষ্টেট আওয়ামী লীগ ও সিটি আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ সহ কমিউনিটির বশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

You Might Also Like