শিশুটি কার?

রাজবাড়ীর নবগঠিত উপজেলা কালুখালীর সোনাপুর এলাকা থেকে উদ্ধার হওয়া দেড় বছরের শিশুটির অভিভাবকের সন্ধান মেলেনি।

অভিভাবকের সন্ধান না মেলায় শিশুটি মোহন সিকদার ও পান্না বেগমের জিম্মায় রয়েছে।

খানগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আতাহার হোসেন তকদির জানান, শুক্রবার সন্ধ্যায় সোনাপুর বাজারের রাস্তার পাশে এলাকাবাসী একটি ছোট শিশুকে ক্রন্দনরত অবস্থায় দেখতে পায়। অনেক খোঁজাখুজি করে শিশুটির কোনো অভিভাবকের সন্ধান না পেয়ে খানগঞ্জ ইউনিয়নের হাটবাড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা মোহন শিকদার শিশুটিকে কোলে তুলে নেন। পরে শিশুটির অভিভাবকের সন্ধানে পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যানকে বিষয়টি অবগত করে কালুখালী থানায় জানানো হয়। কালুখালী থানায় আনার পর স্থানীয় সুধী সমাজ ও সাংবাদিকদের মধ্যস্থতায় মোহন মিয়ার স্ত্রী পান্না বেগমের কোলে শিশুটিকে তুলে দেওয়া হয়।

কালুখালী থানার এসআই মো. শহিদুল ইসলাম জানান, দেড় বছর বয়সের শিশুটিকে উদ্ধারের ব্যাপারে কালুখালী থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। শিশুটি ভালোমত কথা বলতে শেখেনি। যার কারণে তার পরিচয় জানা সম্ভব হচ্ছে না।

দেড় বছর বয়সী শিশুটির গায়ের রং ফর্সা। উদ্ধার হওয়ার সময় গায়ে ও পরনে নীল রঙের গেঞ্জি ও হাফ প্যান্ট ছিল।

শিশুটির বৈধ অভিভাবককে কালুখালী থানা (০১৭৬৯৬৯০০৫০) বা খানগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান আতাহার হোসেন তকদিরের (০১৭১২ ৪৭৩৯৩৭) মোবাইল নম্বরে যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন কালুখালী থানা পুলিশ।

You Might Also Like