শাবি সংঘর্ষে ছাত্রলীগ নয়, বহিরাগতরাই দায়ী : সোহাগ

সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (শাবিপ্রবি) সংঘর্ষে এক ব্যক্তি নিহতের ঘটনায় ছাত্রলীগ নয় বহিরাগতরাই দায়ী বলে দাবি করেছেন ছাত্রলীগের সভাপতি এস এম বদিউজ্জামান সোহাগ।

শুক্রবার সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে ‘শাবিপ্রবিতে উদ্ভুত পরিস্থিতিতে সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে ছাত্রলীগের সুদৃঢ় অবস্থান’ সম্পর্কিত এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, শাবির ঘটনায় ছাত্রলীগকে দায়ী করে যে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে সেটি গণমাধ্যমের হীন চেষ্টা ছাড়া আর কিছুই না। যে কোন ঘটনাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করে ছাত্রলীগকে দায়ী করার অধিকার কারো নেই।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বদিউজ্জামান বলেন, ছাত্রলীগকে আইনের আওতায় আনার প্রশ্নই ওঠে না। এসব বিষয়কে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগকে আইনের আওতায় আনার মতো কিছুই ঘটেনি। এ ঘটনার সঙ্গে ছাত্রলীগের কেউ জড়িত ছিল না। যারা জড়িত তাদের মূল হোতা উত্তম কুমার দাস ছাত্রলীগ থেকে বহিস্কৃত। সে ছাত্রলীগের কেউই না। এবং যে নিহত হয়েছে সে ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের কেউ না এবং ছাত্রলীগেরও কেউ না। এরা বহিরাগত। সুতরাং এসব বিষয়ে পরিকল্পিতভাবে ছাত্রলীগকে দায়ী করার কোন মানে হয় না।

ছাত্রলীগ সভাপতি বলেন, ঘটনার মূল হোতা উত্তম কুমার দাস। তিনি ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হওয়া সত্ত্বেও বহিরাগত সন্ত্রাসীদের আশ্রয় ও প্রশ্রয় দিয়ে শাবিপ্রবিকে সন্ত্রাসীদের বলয়ে পরিণত করেছেন। তিনি গত বছরের ৮ মে শাবিপ্রবির সদ্যবিদায়ী আহ্বায়ক শামিসুজ্জামান সুমনকে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মকভাবে জখম করেছেন। সেই ঘটনায় সুমন ৯ মে জালালাবাদ থানায় একটি মামলা করেন এবং তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়। কিন্তু আইন-শৃংখলা বাহিনীর নাকের ডগার ওপর দিয়ে ঘোরাঘুরি করা সত্ত্বেও আজো তাকে গ্রেফতার করা হয়নি। এর দায়ভার ছাত্রলীগ নেবে না।

তিনি বলেন, ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কৃত এসব সন্ত্রাসীদের বিভিন্ন সময় ছাত্রলীগ হিসেবে পরিচয় করিয়ে দিয়ে ন্যায়বিচারকে বাধাগ্রস্ত করা হচ্ছে। কোনো একটি মহল বাইরে থেকে কলকাটি নেড়ে পরিস্থিতি ঘোলাটে করার ষড়যন্ত্র করছে। এক্ষেত্রে আইনশৃংখলা বাহিনীকে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

তিনি আরো বলেন, দেশের মানুষ শান্তিতে আছে, তখন বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে অস্থিরতা সৃষ্টির চক্রান্ত চলছে। এ ঘটনাও এর বাইরে নয়। সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে এ নিগুঢ় রহস্য বের হয়ে আসবে। এ অবিলম্বে শাবি ক্যাম্পাস খুলে দিয়ে শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানান ছাত্রলীগ সভাপতি।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শামছুল কবির রাহাত, মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক সাইফুর রহমান সোহাগ, সাংগঠনিক সম্পাদক তরিকুল ইসলাম, দফতর সম্পাদক শেখ রাসেল শাবিপ্রবির প্রাক্তন আহ্বায়ক শামসুজ্জামান চৌধুরী সুমন প্রমুখ।

You Might Also Like