Uncategorized

লোহার পাইপ দিয়ে ছাত্রকে পেটালেন শিক্ষক

স্কুল ড্রেস না পড়ে আসায় লোহার পাইপ দিয়ে সাদমান সাইফ শরণ নামে অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রকে পেটালেন সহকারী শিক্ষক কামাল হোসেন।

রবিবার ঝিনাইদহ সরকারি উচ্চ বালক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার বিচার চেয়ে ছাত্রের অভিভাবকরা বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দিয়েছেন।

সাদমান সাইফ শরণ ঝিনাইদহ শহরের আরাপপুর এতিমখানা মোড় এলাকার শরিফুল ইসলামের ছেলে।
ছাত্রের মা শাহেদা খাতুন অভিযোগ করেন, তার ছেলে শ্রেণি শিক্ষক পলাশ কুমারের কাছ থেকে রবিবার ছুটি নিয়েছিল। ফর্ম জমা দেয়ার জন্য সে ওই দিন স্কুল ড্রেস না পড়ে স্কুলে যায়। এসময় সহকারী শিক্ষক কামাল হোসেন তাকে ডেকে নিয়ে লোহার পাইপ দিয়ে মারপিট করে। তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে কালচে দাগ পড়ে যায়। প্রধান শিক্ষক শিক্ষার্থীর অভিভাবকদের ডেকে পাঠান। পরে সেখান থেকে শরণকে বাড়িতে এনে চিকিৎসা দেয় হয়।

অভিযুক্ত শিক্ষক কামাল হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, বিষয়টি সমন্বয় হয়ে গেছে।

এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ সরকারি উচ্চ বালক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক সুনীল কুমার অধিকারী বলেন, তিনি বিষয়টি জানার পর ওই শিক্ষককে ডেকে পাঠান। তাকে স্মরণ করিয়ে দেয়া হয় সরকারের নির্দেশ আছে কোনো শিক্ষার্থীকে মারপিট করা যাবে না। কামাল হোসেনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে ওই শিক্ষার্থীর অভিভাবকরা জানান, অভিযুক্ত শিক্ষক প্রায়ই শিক্ষার্থীদের মারধর করেন। সামাণ্য ত্রুটিতেও কান ধরিয়ে রোদের মধ্যে স্কুল মাঠে দাড় করিয়ে রাখেন। অভিযুক্ত শিক্ষকের শাস্তি দাবী করেন তারা।