র‌্যাবের বিরুদ্ধে তদন্তের নির্দেশ না পৌঁছানোয় সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাকে শোকজ

নারায়ণগঞ্জে সাত খুনের ঘটনায় র‌্যাবের বিরুদ্ধে অভিযোগ তদন্তে হাইকোর্টের দেওয়া আদেশ যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে নির্দিষ্ট সময়ে না পৌঁছানোয় সুপ্রিম কোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখার একজন তত্ত্বাবধায়ককে শোকজ করা হয়েছে। বুধবার ফৌজদারি মিস শাখার তত্ত্বাবধায়ক মোহাম্মদ হোসেন মিয়াকে এ শোকজ করা হয়।

সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার একেএম শামসুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তবে বুধবার দুপুর আড়াইটার দিকে হাইকোর্টের ওই আদেশ বিশেষ বার্তা বাহকের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হয়েছে বলে তিনি জানান।

সোমবার নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম ও আইনজীবী চন্দন সরকারসহ সাতজনকে অপহরণের পর হত্যার ঘটনায় র‌্যাপিড একশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-১১ এর সদস্যদের সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ তদন্তে সরকার ও পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি) এবং বিভাগীয় তদন্ত করতে র‌্যাবকে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।

ওই দিন বিচারপতি রেজাউল হক ও বিচারপতি গোবিন্দ চন্দ্র ঠাকুরের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। একইসঙ্গে সরকারকে এ ঘটনা তদন্তে সাত সদস্যের কমিটি গঠনেরও নির্দেশ দেওয়া হয়।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিবের নেতৃত্বে এ কমিটিতে স্বরাষ্ট্র, আইন ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে দু’জন করে প্রতিনিধি রাখতে বলা হয়। এছাড়া সিআইডিকে আলাদা তদন্ত ও র‌্যাবকে বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট।

সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জের সাত খুনের ঘটনায় র‌্যাব সহায়তা করেছে বলে নিহত প্যানেল মেয়র নজরুলের পরিবারের পক্ষে অভিযোগ তোলা হয়েছে। রোববার নজরুলের শ্বশুর শহীদুল ইসলাম সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করে বলেন, র‌্যাব নজরুল ইসলামকে তুলে নিয়ে হত্যা করেছে। এর জন্য আরেক কাউন্সিলর নূর হোসেনসহ কয়েকজনের কাছ থেকে ছয় কোটি টাকা নিয়েছেন র‌্যাবের কয়েকজন কর্মকর্তা।

সোমবার পত্র-পত্রিকায় এ অভিযোগ সম্বলিত সংবাদ প্রকাশিত হয়। এসব সংবাদের কাটিং সংযুক্ত করে শামিম সরদার নামের সুপ্রিম কোর্টের একজন আইনজীবী সোমবার হাইকোর্টে আবেদন জানালে হাইকোর্ট অভিযোগ তদন্তের আদেশ দেন।

You Might Also Like