রোহিঙ্গা ইস্যুতে অবহেলায় সরানো হচ্ছে জাতিসংঘ কর্মকর্তাকে

রোহিঙ্গাদের ওপর দমন-পীড়নের ইস্যুতে অবহেলার দায়ে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে মিয়ানমারে নিযুক্ত জাতিসংঘের শীর্ষ কর্মকর্তাকে।

কূটনৈতিক ও অন্যান্য সূত্রের বরাত দিয়ে বিবিসি জানিয়েছে, মিয়ানমারে মানবাধিকারকে অগ্রাধিকার দিতে ব্যর্থতার দায়ে রেনেটা লক-ডেসালিয়েনকে দায়িত্বরত পদ থেকে সরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। অবশ্য তাকে সরানোর কারণ হিসেবে সুনির্দিষ্টভাবে রোহিঙ্গা মুসলিমদের অধিকার রক্ষায় ব্যর্থতার কথা বলা হচ্ছে।

জাতিসংঘের মুখপাত্রও লক-ডেসালিয়েনকে সরিয়ে নেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তবে তাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হচ্ছে না। অন্য কোনো দায়িত্ব দেওয়া হবে তাকে।

গত বছর যখন মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর হাতে শত শত রোহিঙ্গা মুসলিম ধর্ষণ ও নির্যাতনের শিকার হচ্ছিল, তখন রহস্যজনকভাবে নীবর ছিলেন দেশটিতে দায়িত্ব পালনকারী জাতিসংঘ কর্মকর্তারা।

কানাডিয়ান নাগরিক লক ডেসালিয়েন ও তার মুখপাত্র তথ্য দেওয়ার মতো ছোটখাটো অনুরোধও প্রত্যাখ্যান করতেন। একবার তিনি সংঘর্ষ এলাকা পরিদর্শন করেন কিন্তু ফেরার পর এক সংবাদ সম্মেলনে তার কথা রেকর্ড বা ধারণ করার অনুমতি দেননি তিনি।

এমনও হয়েছে, মানবাধিকার নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক হচ্ছে, কিন্তু অধিকার কর্মীদের সেখানে রাখা হয়নি। তখন লক-ডেসালিয়েন ও তার টিমের বিরুদ্ধে ব্যাপক সমালোচনা শুরু হয়। তখন ডেসালিয়েনের টিম থেকে দাবি করা হয়, তাদের কাজ উন্নয়ন প্রকল্পে মনোযোগ দেওয়া ও মিয়ানমার সরকারের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক স্থাপন করা। তাদের কাজ সংখ্যালঘু, বিশেষ করে অত্যাচারিত রোহিঙ্গাদের নিয়ে নয়।

You Might Also Like