হোম » রোনালদোর ১-৪০০

রোনালদোর ১-৪০০

ঢাকা অফিস- সোমবার, মে ১৫, ২০১৭

দেখতে দেখতে স্প্যানিশ ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে ৪০০ গোলের মাইলফলক ছুঁয়ে ফেললেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। রোববার রাতে লা লিগায় সেভিয়ার বিপক্ষে জোড়া গোল করেন পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড। প্রথম গোলটি করেই প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে রিয়াল মাদ্রিদের জার্সিতে ৪০০ গোল করার অনন্য কীর্তি গড়েন বিশ্বের অন্যতম সেরা এই ফুটবলার।

বেশিদিন আগের কথা নয়, যেদিন রিয়াল মাদ্রিদে নাম লিখিয়েছিলেন রোনালদো। রেকর্ড পারিশ্রমিকে ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড থেকে স্পেনের ক্লাবের সঙ্গে যুক্ত হন। সিআর-সেভেন তখন ছিলেন সিআর-নাইন। এরপর নিজের মতো করে ক্লাবকে সাফল্য এনে দিয়েছেন পতুর্গিজ তারকা। ক্লাব সাফল্য, ব্যক্তিগত সাফল্য- সবকিছুতেই রোনালদো সেরাদের সেরা।

প্রথম থেকে চারশ গোল, প্রতিটিতেই রোনালদো ফুটবলপ্রেমীদের উল্লাসে ভাসিয়েছেন। ক্লাবকে দিয়েছেন জয়ের স্বাদ, গৌরবের মুকুট। তার করা গোলগুলোকে নিয়ে রাইজিংবিডির বিশেষ আয়োজন ‘রোনালদোর ১-৪০০’।

১ম গোল: ২৯ আগস্ট, ২০০৯। রিয়াল মাদ্রিদের ৯ নম্বর জার্সিতে প্রথমবারের মতো মাঠে নামলেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। প্রতিপক্ষ ডেলপোর্টিভো। লা লিগার ম্যাচে শুরু থেকেই দাপট রিয়ালের। ৪৬ মিনিটে লেফট উইং থেকে দুই ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে বল নিয়ে ডি বক্সের ভেতরে ঢুকে গেলেন রোনালদো। ডেলপোর্টিভোর আরেক ডিফেন্ডার পা তাক করে ফেলে দিলেন রোনালদোকে। রেফারি পেনাল্টি দিলেন রিয়াল মাদ্রিদকে। প্রথম দিন থেকে আজ পর্যন্ত পেনাল্টি মানেই ভরসার এক নাম রোনালদো। ডান পায়ে শট নিয়ে অভিষিক্ত ম্যাচেই গোল করলেন রোনালদো। গোলের খাতা সেদিন থেকেই খোলা শুরু। ৩-২ ব্যবধানে ম্যাচ জিতেছিল রিয়াল মাদ্রিদ।
১০তম গোল: ৫ ডিসেম্বর, ২০০৯। লা লিগার ম্যাচে মুখোমুখি আলমেরিয়া ও রিয়াল মাদ্রিদ। প্রথম সাত ম্যাচে নয় গোল পাওয়া রোনালদো উড়ছিলেন আকাশে। অষ্টম ম্যাচেও রোনালদো পান গোলের স্বাদ। ম্যাচের শেষ মুহূর্তে রিয়াল মাদ্রিদের জার্সিতে দশম গোল করেন রোনালদো। ৪-২ ব্যবধানে ম্যাচ জিতেছিল রিয়াল মাদ্রিদ।

৫০তম গোল: ২০ নভেম্বর, ২০১০। লা লিগার ম্যাচে মুখোমুখি অ্যাথলেটিকো বিলবাও ও রিয়াল মাদ্রিদ। সেদিন বিলবাওয়ের জালে গোল উৎসব করেছিল রিয়াল। ৫-১ গোলে জয় পায় লস ব্লাঙ্কোসরা। হ্যাটট্রিক করেছিলেন রোনালদো। দ্বিতীয় গোলটি দিয়ে গোলের হাফ সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন এই তারকা। ৩৩ ম্যাচেই পঞ্চাশ গোলের মাইলফলক স্পর্শ করেন রোনালদো।

১০০তম গোল: ২ নভেম্বর, ২০১১। চ্যাম্পিয়নস লিগে লিঁওর মুখোমুখি রিয়াল মাদ্রিদ। ২-০ গোলে জয় পায় রিয়াল। পেনাল্টি থেকে গোল করে গোলের সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন রোনালদো।

১৫০তম গোল: ২ সেপ্টেম্বর, ২০১২। পুঁচকে গ্রানাডার মুখোমুখি রিয়াল মাদ্রিদ। সে বছরই প্রথম লা লিগার শিরোপা পান রোনালদো। সেঞ্চুরি থেকে ১৫০তম গোলে যেতে মাত্র দশ মাস সময় নেন রোনালদো। গ্রানাডার বিপক্ষে ৩-০ গোলে জিতেছিল রিয়াল মাদ্রিদ। ডি বক্সের ভেতরে বাম পাশে শট নিয়ে বল জালে জড়িয়েছিলেন রোনালদো।

২০০তম গোল: ৪ মে, ২০১৩। লা লিগার ম্যাচে ভিলাদোলিদের মুখোমুখি রিয়াল মাদ্রিদ। হাড্ডাহাড্ডি ম্যাচে ৪-৩ গোলে জয় পায় লস ব্লাঙ্কোসরা। এক মৌসুমে রোনালদোর জোড়া সাফল্য। এক মৌসুমে গোলসংখ্যা দেড়শ থেকে ডাবল সেঞ্চুরিতে রূপ দেন রোনালদো। মৌসুমের শেষ তিন ম্যাচ রোনালদো গোল করতে পারেননি। লক্ষ্যভেদ করতে পারলে গোলসংখ্যা আরো বেড়ে যেত।

২৫০তম গোল: ২৯ এপ্রিল, ২০১৪। চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনালে মুখোমুখি বায়ার্ন মিউনিখ ও রিয়াল মাদ্রিদ। ৪-০ গোলে জয় পায় রিয়াল। জোড়া গোল করেন রোনালদো। তার করা দ্বিতীয় গোলটি দিয়ে আড়াইশ গোলের রেকর্ড স্পর্শ করেন পতুর্গিজ তারকা। বড় মঞ্চের বড় তারকা রোনালদো অসাধারণ পারফরম্যান্সে ১২ বছর পর রিয়াল মাদ্রিদকে চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে নিয়ে যান।
৩০০তম গোল: ৯ এপ্রিল, ২০১৫। লা লিগায় রায়ে ভায়েকানোর মুখোমুখি রিয়াল মাদ্রিদ। ২-০ ব্যবধানে জয় পাওয়া ম্যাচে রোনালদোর পা ছুঁয়ে আসে একটি গোল। আর ওই গোল দিয়ে তিনশ গোলের মাইলফলক স্পর্শ করেন সিআর-সেভেন। তিনশ গোল পেতে রোনালদোকে খেলতে হয়েছে ২৮৮ ম্যাচ।

৩৫০তম গোল: ৫ মার্চ, ২০১৬। লা লিগার ম্যাচে সেল্টা ভিগোর মুখোমুখি রিয়াল। ৭ গোলের উৎসবের ম্যাচে চার গোল করেন রোনালদো। চতুর্থ গোলটি দিয়ে সাড়ে তিনশ গোলের মাইলফলক স্পর্শ করেন।

৪০০তম গোল: ঘরের মাঠে রোববার রাতে সেভিয়াকে ৪-১ গোলে হারিয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। জোড়া গোল করেন রোনালদো। প্রথম গোল দিয়ে চারশ গোলের মাইলফলক স্পর্শ করেন রোনালদো। এরপর সেভিয়ার জালের আরো একটি গোল করেন তিনি।

রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে সবচেয়ে বেশি গোল করেছেন রোনালদো। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩২৩ গোল রাউলের। লা লিগায় সর্বোচ্চ ২৮২ গোল করেছেন রোনালদো। এ ছাড়া চ্যাম্পিয়নস লিগে ৮৮, কোপা দেল রেতে ২২, ক্লাব বিশ্বকাপে চারটি, স্প্যানিশ সুপার কাপে তিনটি এবং উয়েফা সুপার কাপে দুটি গোল করেছেন রিয়াল তারকা। ২০১৪-১৫ মৌসুমে সব ধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে সর্বোচ্চ ৬১ গোল করেন চারবারের ফিফা বর্ষসেরা এই ফুটবলার।