হোম » ‘রেঙ্গুন’র বিরুদ্ধে বিধি ভঙ্গের অভিযোগ

‘রেঙ্গুন’র বিরুদ্ধে বিধি ভঙ্গের অভিযোগ

ঢাকা অফিস- বুধবার, মার্চ ৮, ২০১৭

একে তো বক্স অফিসে ব্যর্থ বিশাল ভরদ্বাজ পরিচালিত সিনেমারেঙ্গুন। এর মধ্যে মরার উপর খাঁড়ার ঘা হয়ে আইনি জটিলতায় পড়েছে সিনেমাটি। অভিযোগ উঠেছে, সেন্সর সার্টিফিকেট এবং ধূমপান বিরোধী সতর্ক বার্তা ছাড়াই প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শন হচ্ছে শহিদ কাপুর, কঙ্গনা রাণৌত ও সাইফ আলী খান অভিনীত সিনেমাটি।

বিধি ভঙ্গ করে সিনেমা প্রদর্শিত হচ্ছে এরকম অভিযোগ করা হয় সেন্সর বোর্ডে। বিষয়টি আমলে নিয়ে আইন অনুযায়ী কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের করা হবে বলে জানিয়েছে সেন্সর বোর্ড।

এ প্রসঙ্গে ভারতীয় সেন্সর বোর্ডের চেয়ারপার্সন পেহলাজ নিহালানি বলেছেন, ‘আমাদের কাছে অভিযোগ এসেছে ভারতে এবং ভারতের বাইরে সেন্সর সার্টিফিকেট এবং ধূমপান বিরোধী সতর্ক বার্তা ছাড়াই রেঙ্গুন সিনেমাটি প্রদর্শিত হচ্ছে। যেখানে সেন্সরের আইন অনুয়ায়ী মদ ও ধূমপানের দৃশ্যে সতর্ক বার্তা ব্যবহার বাধ্যতামূলক। রেঙ্গুন সিনেমায় এমন অনেক দৃশ্য রয়েছে। সিনেমায় মদ, সিগারেটসহ অন্যান্য নেশাজাতীয় দ্রব্যের ব্যবহার থাকায় আমরা নির্মাতাকে নির্দেশ দিয়েছিলাম শুরুতে ক্রেডিট লাইনে সতর্ক বার্তা দিয়ে দিতে। সিনেমাটিতে এ বিষয়টি নেই। আমরা খবর পেয়েছি সিনেমার শুরুতে এবং বিরতির পরও ধূমপান বিরোধী কোনো সতর্ক বার্তা দেয়া হয়নি। এছাড়া আরো জানতে পেরেছি আইন অনুসারে সিনেমার শুরুতে সেন্সর সার্টিফিকেট দেখানোর কথা থাকলেও তা দেখানো হয়নি। এটি ভয়াবহ অপরাধ।’

এ বিষয়ে কঠোর আইনি পদক্ষেপ নেয়া হবে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা প্রথমে ডিজিটাল অপারেটরদের বিরুদ্ধে এ বিষয়ে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করব। এই মুহূর্তে আমরা কাউকে লক্ষ্য করে কিছু করছি না। সেন্সর বোর্ডের ছাড়পত্র পাওয়া অংশই সিনেমা হলে প্রদর্শন করা ডিজিটাল অপারেটরদের দায়িত্ব। আমরা যা সার্টিফিকেট দিয়েছে তার এক সেকেন্ড কম বা বেশি প্রদর্শন করা উচিৎ নয়। আমাদেরকে কতটুকু দৈর্ঘ্যের সিনেমা দেখানো হয়েছে এবং তার মধ্যে কতটুকু সেন্সর ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে তা সেন্সর সার্টিফিকেটে উল্লেখ করা রয়েছে। যদি ধূমপান বিরোধী সতর্ক বার্তা সিনেমার শুরুতে এবং বিরতির পর না দেখানো হয় এবং রেঙ্গুন সিনেমায় সেন্সর সার্টিফিকেট দেখানো না হয় তাহলে ডিজিটাল অপারেটররা কম ফুটেজ দেখাচ্ছেন। এটি ভয়াবহ অপরাধ। এতে আরো কোনো বড় আইন অমান্য করা হয়েছে কিনা সে বিষয়ে খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’