রুশ সাবমেরিন নিয়ে ভীত আমেরিকা; ইন্টারনেট কাটার আশংকা

রাশিয়ার যুদ্ধজাহাজ ও সাবমেরিন নিয়ে ভীত হয়ে পড়েছে আমেরিকা। দেশটি আশংকা করছে- রুশ সাবমেরিন ও যুদ্ধজাহাজগুলো সমুদ্রের নীচে ইন্টারনেট ক্যাবল কেটে দিতে পারে। এতে ইন্টারনেট সংযোগ তছনছ হবে এবং যোগাযোগ, তথ্য ও প্রযুক্তি ক্ষেত্রে মহাবিপর্যয় দেখা দিতে পারে।

এ বিষয়ে মার্কিন দৈনিক নিউ ইয়র্ক টাইমসে গতকাল (রোববার) এক প্রতিবেদন প্রকাশ হয়েছে যাতে বলা হচ্ছে-সম্প্রতি মার্কিন গোয়েন্দারা উত্তর সাগর, উত্তর-পূর্ব এশিয়া এবং আমেরিকার উপকূলে রুশ সাবমেরিন ও জাহাজগুলোকে সন্দেহজনক আগ্রাসী তৎপরতায় লিপ্ত থাকতে দেখা গেছে। এসব নৌযান সমুদ্রের নীচে থাকা ক্যাবলের কাছে তৎপর ছিল। মার্কিন এসব ক্যাবল দিয়ে বিশ্বের প্রায় সব ইন্টারনেট যোগযোগ সম্পন্ন হয়। মার্কিন গোয়েন্দাদের এ বক্তব্যে আমেরিকার সামরিক ও গোয়েন্দা কর্মকর্তাদের মাঝে উদ্বেগ ছড়িয়ে পড়েছে যে, উত্তেজনা কিংবা যুদ্ধ-বিগ্রহের সময় রাশিয়া এসব ইন্টারনেট ক্যাবলে হামলা চালানোর পরিকল্পনা নিচ্ছে। নিউ ইয়র্ক টাইমস বলছে, এক ডজনেরও বেশি মার্কিন সামরিক ও গোয়েন্দা কর্মকর্তা নিশ্চিত করেছেন যে, বিষয়টি পেন্টাগনের মনযোগ আকর্ষণ করেছে।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বিশ্বব্যাপী রাশিয়ার নৌ তৎপরতা বেড়েছে এবং এ নিয়ে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থাগুলো অত্যন্ত গোপনে নানা পর্যালোচনা ও বিশ্লেষণ করছে। তবে তা মোটেই প্রকাশ করা হচ্ছে না। যুদ্ধের সময় যদি রাশিয়া সমুদ্রের নীচের ইন্টারনেট ক্যাবল কেটে দেয় তাহলে তাৎক্ষণিকভাবে ঠিক করার জন্য আমেরিকা কী ব্যবস্থা নেবে এবং এ ধরনের কর্মকাণ্ড ঠেকাতে কী করা হবে সে বিষয়ে মার্কিন কর্মকর্তারা কিছুই বলছেন না।

নিউ ইয়র্ক টাইমস বলছে, সমুদ্রের নীচের ইন্টারনেট ক্যাবল যোগাযোগের মাধ্যমে প্রতিদিন ১০ ট্রিলিয়ন ডলারের বেশি অর্থের বাণিজ্যিক লেনদেন হয়।

You Might Also Like