রাশিয়ার জাতীয় নিরাপত্তাকে বিপদাপন্ন করে তুলছে আমেরিকা: মস্কো

মস্কোর প্রতি ওয়াশিংটনের ক্রমবর্ধমান বিদ্বেষী আচরণ রাশিয়ার জাতীয় নিরাপত্তাকে বিপদাপণ্ন করে তুলছে বলে অভিযোগ করেছেন রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ। রোববার টেলিভিশনে সম্প্রচারিত এক সাক্ষাৎকারে তিনি আরো বলেন, মার্কিন সরকার তার দেশের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক খারাপ করে দিচ্ছে।

‘রুসিয়া আল-ইয়াওম’ টিভিকে দেয়া সাক্ষাৎকারে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, তার দেশের প্রসঙ্গ আসলেই মার্কিন সরকার ‘রাশিয়া-বিদ্বেষ’ ছড়ানোর চেষ্টা করে এবং এটা এখন ওয়াশিংটনের মৌলিক নীতিতে পরিণত হয়েছে।

ওয়াশিংটনের এ বিদ্বেষী নীতির উদাহরণ দিতে গিয়ে তিনি সিরিয়া ও ইউক্রেন সংকটে মার্কিন অবস্থান এবং সম্প্রতি দু’দেশের মধ্যকার পারমাণবিক সহযোগিতা স্থগিত হয়ে যাওয়ার প্রসঙ্গ তুলে ধরেন। ল্যাভরভ বলেন, “আমেরিকা শুধু মুখে রাশিয়ার প্রতি শত্রুতামুলক কথা বলছে না সেইসঙ্গে আমাদের জাতীয় স্বার্থকে ক্ষতিগ্রস্ত করার আগ্রাসী পদক্ষেপ নিচ্ছে এবং আমাদের নিরাপত্তার জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়াচ্ছে।”

২০১৪ সাল থেকে ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে দেশটির মার্কিন সমর্থিত সরকার ও রুশ-পন্থি গেরিলাদের মধ্যে সংঘর্ষ চলছে। এ সংঘর্ষে রাশিয়ার হাত রয়েছে বলে আমেরিকা ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন যে অভিযোগ করছে মস্কো তা অস্বীকার করেছে। এদিকে গত সপ্তাহে আমেরিকার সঙ্গে পরমাণু ও জ্বালানী বিষয়ক একটি সহযোগিতা চুক্তি স্থগিত করেছে রাশিয়া।

মস্কো বলেছে, ইউক্রেন সংকটকে কেন্দ্র করে রাশিয়ার ওপর আরোপিত মার্কিন নিষেধাজ্ঞার জবাবে এটি করা হয়েছে। সঙ্গে সঙ্গে পরমাণু অস্ত্র তৈরির উপযুক্ত প্লুটোনিয়াম নিষ্ক্রিয় করার ব্যাপারে দু’দেশের মধ্যে যে চুক্তি রয়েছে তাও স্থগিত করেছে রাশিয়া।

মস্কোর এ পদক্ষেপের ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যখন ওই চুক্তি হয়েছিল তখন সম্পর্ক ছিল স্বাভাবিক, সভ্য এবং তখন কেউ কারো অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করতে চাইত না। কিন্তু এখন সে সম্পর্কে মৌলিক পরিবর্তন এসেছে। রাশিয়ার সীমান্তে ন্যাটো জোট সামরিক শক্তি বৃদ্ধি করছে অভিযোগ করে ল্যাভরভ বলেন, ওয়াশিংটন যে মস্কোর প্রতি বিদ্বেষী আচরণ বাড়িয়েছে এটি তার আরেকটি প্রমাণ।#

পার্সটুডে

You Might Also Like