রমেকে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট

রংপুর মেডিক্যাল কলেজে (রমেক) হাসপাতালের ইন্টার্ন চিকিৎসকরা পাঁচ দফা দাবিতে অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘট শুরু করেছে।

মঙ্গলবার সকাল থেকে তারা এ কর্মসূচি শুরু করে। সোমবার রাতে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের দুগ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় ইন্টার্ন ডক্টর অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতিসহ পাঁচজন আহত হওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে এই ধর্মঘটের ডাক দেয় তারা।

এ নিয়ে হাসপাতাল ও কলেজ এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে শহীদ ডাক্তার মিলন হোস্টেলে সোমবার রাত ১১ টার দিকে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের রাকিব গ্রুপ ও ফারহান গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষ হয়। এতে রমেক হাসপাতাল ইন্টার্ন ডাক্তার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মাহফুজুল হক রাকিব ও রাসেলসহ পাঁচজন ইন্টার্ন চিকিৎসক আহত হয়।

এদের মধ্যে রাকিব ও রাসেলকে রমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনার প্রতিবাদে আজ সকাল থেকে মারপিটের সঙ্গে জড়িত সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তার, ঘটনার সঙ্গে জড়িত ইন্টার্ন চিকিৎসকদের ইন্টার্নশিপ বাতিল, ক্যাম্পাসে স্থায়ী পুলিশ ক্যাম্প স্থাপন, বহিরাগত সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তার এবং ক্ষতিপূরণের দাবিতে হাসপাতালের ইন্টার্ন চিকিৎসকরা অদির্নিষ্টকালের কর্মবিরতি শুরু করে। এতে করে ভোগান্তিতে পড়েন রোগীরা।

রমেক হাসপাতালে ইন্টার্ন চিকিৎসক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মাহফুজুল হক রাকিব জানান, তাদের দাবিসমুহ পূরণ না হওয়া পর্যন্ত ধর্মঘট চলবে। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

তবে অন্য গ্রুপের নেতা ফারহান হোসেন তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

হাসপাতালের পরিচালক ডা. আ.স.ম বরকতুল্লাহ জানান, তিনি এখন ঢাকায় অবস্থান করছেন। তবে বিষয়টি শুনেছেন। আলোচনার মাধ্যমে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে বলে জানান।

You Might Also Like