যেকারণে পদ হরালেন ভারতের স্বরাষ্ট্র সচিব !

সারদা নিয়ে সি বি আই তদম্তে নাক গলানোর জন্য স্বরাষ্ট্র সচিব অনিল গোস্বামীকে সরিয়ে দিল কেন্দ্রীয় সরকার৷‌ বুধবার সন্ধ্ায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং ডাকেন সচিবকে৷‌ আসামের বিতর্কিত কংগ্রেস নেতা এবং পি ভি নরসিংহ রাওয়ের আমলে স্বরাষ্ট্র দপ্তরের রাষ্ট্রমন্ত্রী মাতঙ্গ সিংকে নিয়ে সি বি আই-কে ফোন করার কথা মন্ত্রীর কাছে স্বীকার করে নেন তিনি৷‌ রাজনাথ সিং সে কথা জানান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে৷‌ এর পর অনিল গোস্বামীর সঙ্গে বৈঠকে বসেন স্বয়ং মোদি‌ এবং সচিবকে পদত্যাগ করার পরামর্শ দেন তিনি৷‌ রাতেই কেন্দ্রের গ্রামোন্নয়ন দপ্তরের সচিব এল সি গোয়েলকে নতুন স্বরাষ্ট্র সচিব হিসেবে নিয়োগের কথা ঘোষণা করেছে কেন্দ্র৷‌ ক্যাবিনেটের নিয়োগ সংক্রাম্ত কমিটির বৈঠকের পর গভীর রাতে এই সিদ্ধাম্ত ঘোষণা করা হয়৷‌ পদত্যাগের পর অনিল গোস্বামী তাঁর স্বেচ্ছাবসরের আবেদন মঞ্জুর করার অনুরোধ করলে সরকার তা মেনে নেয়৷‌ ২০১৩ সালে ইউ পি এ সরকারের আমলে স্বরাষ্ট্র সচিব নিযুক্ত হয়েছিলেন অনিল গোস্বামী৷‌ ৩০ জুন তাঁর অবসর নেওয়ার কথা ছিল৷‌ কিন্তু মাতঙ্গ সিংকে ছাড়াতে ফোন করাটাই কাল হল৷‌ সংবাদমাধ্যমে খবর হয়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের সর্বোচ্চ স্তরের এক অফিসার মাতঙ্গ সিংকে নিয়ে সি বি আইয়ের তদম্ত ‘প্রভাবিত করার চেষ্টা করেছেন শনিবার৷‌ এমনকী মাতঙ্গ গ্রেপ্তার যেন না হন, সেজন্যও ফোনে তদবির করেছেন৷‌ এর পরই সংবাদমাধ্যমের নজরে চলে আসে অনিলের নাম৷‌ শুরু হয় তুমুল বিতর্ক৷‌ গত সপ্তাহে গ্রেপ্তার হন মাতঙ্গ৷‌ সারদার সঙ্গে তাঁর প্রায় ৩০ কোটি টাকার বেআইনি লেনদেন হয়েছে বলে অভিযোগ সি বি আইয়ের৷‌ এ নিয়ে ৩ অফিসারকে সরিয়ে দিল মোদি সরকার৷‌ গত সপ্তাহেই বিদেশ সচিব পদে সুজাতা সিংকে সরিয়ে এস জয়শঙ্করকে বসানো হয়েছিল৷‌ আর গত মাসে ডি আর ডি ও প্রধান অবিনাশ চন্দ্রকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছিল৷‌

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের অন্য কোনও অফিসার নন, খোদ স্বরাষ্ট্র সচিব অনিল গোস্বামীই প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কংগ্রেস নেতা মাতঙ্গ সিংয়ের গ্রেপ্তারি ঠেকাতে সি বি আই অফিসারদের ফোন করেছিলেন– হইচই-ফেলা এই খবরে বুধবার সকালে দপ্তরে এসেই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং তলব করেন স্বরাষ্ট্র সচিব অনিল গোস্বামীকে৷‌ এক ঘণ্টা বৈঠক হয় দু’জনের৷‌ বৈঠক থেকে বেরিয়ে স্বরাষ্ট্র সচিব অনিল গোস্বামী সাংবাদিকদের একটি কথাও বলতে রাজি হননি৷‌ এর ঠিক আগে সকালে রাজনাথ সি বি আইয়ের ডিরেক্টর অনিল সিন‍্হাকে ডেকে এনে বেশ কিছুক্ষণ কথা বলেন৷‌ একই ভাবে এ বৈঠক থেকে বাইরে এসে সাংবাদিকদের কাছে মুখ খুলতে চাননি সি বি আই ডিরেক্টরও৷‌ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং স্বরাষ্ট্র সচিব অনিল গোস্বামীর কাছে এ ব্যাপারে ব্যাখ্যা চান৷‌ জানা গেছে, অনিল সেখানে তাঁর ফোন করার বিষয়টি স্বীকার করে নেন৷‌ সি বি আই ডিরেক্টরের কাছ থেকেও শনিবার কলকাতায় জেরার পর মাতঙ্গ সিংয়ের গ্রেপ্তার ও তার আগের পারিপার্শ্বিক বিবরণ জেনে নেন৷‌ এর পর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে দেখা করে গোটা বিষয়টির বিশদে বিবরণ দেন৷‌ এর পর ছিল শুধু সিদ্ধাম্তের অপেক্ষা৷‌ ঘটনার গতিবিধি থেকে বোঝাই যাচ্ছিল, ইস্তফা না দিয়ে উপায় নেই স্বরাষ্ট্র সচিব অনিল গোস্বামীর৷‌ মাতঙ্গ সিং কংগ্রেস নেতা, আসাম থেকে ১৯৯২-এ রাজ্যসভার সাংসদ হওয়ার পর কেন্দ্রে মন্ত্রী হয়েছিলেন, কেন্দ্রে রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও আমলাদের সঙ্গে যথেষ্টই ঘনিষ্ঠতা আছে৷‌ আছে প্রভাব-প্রতিপত্তি৷‌ দিল্লি-ভোটের মুখে তাঁর গ্রেপ্তার ও তার আগে স্বরাষ্ট্র সচিব অনিল গোস্বামীর এই ‘বন্ধুকৃত্যের’ অভিযোগ নিয়ে কংগ্রেস কোনও উচ্চবাচ্য করছে না৷‌ কিন্তু শাসক বি জে পি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র সচিবকে নিয়ে অস্বস্তিতে পড়ে৷‌ মাতঙ্গ-কাণ্ডে সি বি আই প্রধান অনিল সিন‍্হার ব্যাপারেও সি বি আই প্রধানমন্ত্রীর অফিসে (পি এম ও) গোটা বিষয়টি জানিয়ে একটি রিপোর্ট পাঠিয়ে দিয়েছে৷‌

You Might Also Like