যুবতীকে পতিতালয়ে বিক্রি : স্বামী-স্ত্রী গ্রেফতার

চুয়াডাঙ্গা জেলার  জীবননগর উপজেলার মানিকপুর থেকে জোসনা খাতুন (২৬) নামে এক যুবতীকে ঢাকায় চাকরি দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে দৌলতদিয়া পতিতালয়ে বিক্রি করে দেওয়া মামলার আসামী স্বামী-স্ত্রীকে সাভার থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- উপজেলার মানিকপুর গ্রামের মৃত ইসলাম মন্ডলের ছেলে সিরাজুল ইসলাম (৫৫) তার স্ত্রী লিপি খাতুন (৪৮)। মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।

পুলিশ জানায়, মঙ্গলবার সকালে জীবননগর থানার সেকেন্ড অফিসার লুতফুল কবির সঙ্গীয় ফোর্সসহ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ঢাকার সাভারের উলাইল এলাকায় অভিযান চালিয়ে সিরাজুল ইসলাম ও তার স্ত্রী লিপি খাতুনকে গ্রেফতার করে।

জানা যায়, গত ২০ অক্টোবর সকালে সিরাজুল ও তার স্ত্রী লিপি খাতুন একই গ্রামের শহিদুল ইসলামের মেয়ে জোসনা খাতুনকে ঢাকায় চাকরি দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে বাড়ি থেকে নিয়ে যায়। এরপর তারা জোসনা খাতুনকে রাজবাড়ী জেলার দৌলতদিয়া পতিতালয়ের সর্দারণী বিথি বেগমের কাছে ১ লক্ষ ৩০ হাজার টাকায় বিক্রি করে দেয়। পরে খবর পেয়ে জোসনার বাবা শহিদুল ইসলাম গত ৭ ডিসেম্বর জীবননগর থানায় সিরাজুল ও তার স্ত্রী লিপি এবং তার ছেলে বাবুর নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করে। পরের দিন সন্ধ্যায় পুলিশ পতিতালয় থেকে জোসনা খাতুনকে উদ্ধার করে। মামলার প্রায় সাড়ে ৩ মাস পরে মঙ্গলবার সকালে সিরাজুল ও তার স্ত্রী লিপি খাতুনকে ঢাকা সাভার থেকে গ্রেফতার  করে পুলিশ।

জীবননগর থানার সেকেন্ড অফিসার লুতফুল কবির ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, তাদেরকে বুধবার চুয়াডাঙ্গা আদালতে হাজির করে ৭ দিন রিমান্ডের আবেদন করা হবে।

 

You Might Also Like