যুক্তরাষ্ট্র-রাশিয়ার পরমাণু যুদ্ধে কেউ বাঁচবে না : পুতিন

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, সম্ভাব্য কোনো যুদ্ধে রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র যদি পরস্পরের বিরুদ্ধে পরমাণু অস্ত্র ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নেয়, তাহলে নিজেকে ‘বিজয়ী’ দাবি করার মতো কেউ বেঁচে থাকবে না।

আমেরিকান চলচ্চিত্রকার অলিভার স্টোনের নেওয়া এক সাক্ষাৎকারে পুতিন বলেছেন, ‘এমন কোনো পরমাণু যুদ্ধে কেউ বেঁচে থাকবে- তা আমি মনে করি না।’

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক একটি ক্যাবল নেটওয়ার্কে ‘দি পুতিন ইন্টারভিউস’ শিরোনামে নির্মিত একটি প্রমাণ্যচিত্রে আগামী সপ্তাহে এ সাক্ষাৎকারটি দেখানো হবে।

অলিভার স্টোন পুতিনের কাছে জানতে চান, এ ধরনের ‘গরম যুদ্ধে’ যুক্তরাষ্ট্র আধিপত্যশীল হবে কিনা। এর উত্তরে পুতিন ওইসব কথা বলেন।

প্রামাণ্যচিত্রের টিজার হিসেবে রাশিয়ান টাইমসে প্রকাশিত সাক্ষাৎকারের কিছু অংশ প্রকাশিত হয়েছে। এতে তিনি আবারও ন্যাটোকে আমেরিকার হাতিয়ার হিসেবে উল্লেখ করেছেন এবং বলেছেন, যেসব দেশ এ সংগঠনে অংশ নিয়েছে, তারা মূলত যুক্তরাষ্ট্রের যান হিসেবে ব্যবহৃত হবে।

পুতিন বলেন, কোনো দেশ একবার ন্যাটোর সদস্য হলেই তার পক্ষে যুক্তরাষ্ট্রের চাপ সামলানো কঠিন হয়ে পড়ে। এবং যখন তখন এই দেশে যেকোনো ধরনের অস্ত্র ব্যবস্থা দাড় করানো যায়। বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্রবিরোধী ব্যবস্থা, নতুন নতুন সামরিক ঘাঁটি এবং প্রয়োজনে সংঘাতের নয়া নয়া কৌশলও তৈরি করা যায়।’

সীমান্তে ন্যাটোর সামরিক শক্তির সম্প্রসারণের কারণে দীর্ঘদিন ধরে উদ্বেগে রয়েছে রাশিয়া। সাক্ষাৎকারে পুতিন বলেন, সম্ভাব্য কোনো শত্রুকে খুঁজছে ন্যাটো, যার মাধ্যমে তারা তাদের অস্তিত্ব জাহির করতে পারে।

পুতিন পাল্টা প্রশ্ন করেন, ‘এখন কোনো ইস্টার্ন ব্লক নেই, নেই সোভিয়েত ইউনিয়ন। তাহলে ন্যাটোর অস্তিত্ব আছে কীসের জন্য? আমার মনে হয়, ন্যাটো তার অস্তিত্ব জাহির করতে বাইরের কোনো শত্রুর সন্ধান করছে, ন্যাটোর বাইরের শত্রু প্রয়োজন এবং এ ধরনের কাউকে খুঁজে পেতে উসকানিমূলক কিছু করতে চায় ন্যাটো।’

পুতিন যুক্তি দেখান, ন্যাটোর হুমকি মোকাবিলা ও তাদের সীমান্তে সামরিক শক্তি বাড়ানোর মধ্য দিয়ে রাশিয়াকে বাধ্য করা হয়েছে প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা নিতে।

এই প্রমাণ্যচিত্রে অলিভার স্টোন পুতিনের প্রশংসা করেছেন, কারণ তিনি পাঁচবার গুপ্তহত্যার চেষ্টার পরও বেঁচে আছেন এবং পুতিনের নিরাপত্তা বাহিনী সেসব চেষ্টা নস্যাৎ করে দিয়েছে।

এই সাক্ষাৎকারে পুতিন ঈশ্বরের প্রতি তার বিশ্বাসের ইঙ্গিত দিয়েছেন। ‘আপনার ভবিষ্যৎ কী স্যার, আপনি জানেন কি?’- এই প্রশ্নের উত্তরে পুতিন বলেন, ‘আমাদের গন্তব্য সম্পর্কে শুধুই ঈশ্বর জানেন- আপনার ও আমার।’

You Might Also Like