১৩ বছর বয়সী আলফি বিশ্বের সর্বকনিষ্ট বাবা নন!

যুক্তরাজ্যের ১৩ বছর বয়সী স্কুলছাত্র আলফি প্যাটেনকে এতদিন সবাই বিশ্বের সর্বকনিষ্ট বাবা হিসেবে জানতো। এ বছরের ৯ ফেব্রুয়ারী জন্মগ্রহনকারী একটি শিশুর বাবা হিসেবে তাকেই সন্দেহ করেছিলো শিশুটির ১৫ বছর বয়সী মা। কিন্তু ডিএনএ টেষ্টে ধরা পড়লো, না, আলফি এই শিশুটির বাবা নয়। শিশুটির বাবা অন্য কেউ। আর তাতেই সর্বকনিষ্ঠ বাবার খেতাব গেলো আলফির। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে টেলিগ্রাফ।

শিশুটির জন্মের সময় থেকেই স্থানীয়ভাবে গুজব রটেছিল যে, ঘটনার সময় মাত্র ১২ বছর বয়সী আলফি শিশুটির বাবা নয়, বরং অন্য একজন ছেলেই শিশুটির বাবা। তবে সে সময় আলফি শিশুটিকে তার ছেলে হিসেবে মেনে নিয়েছিল।
সম্প্রতি ডিএনএ টেস্টে প্রমাণিত হয়েছে, আলফি শিশুটির প্রকৃত বাবা নয়। তার বদলে জানা গেছে অন্য এক ১৫ বছর বয়সী ছেলে টাইলার বার্কার শিশুটির বাবা।

এ ঘটনার পর যুক্তরাজ্যের তরুণ প্রজন্ম ও শিশুদের নিয়ে উদ্বেগ ছড়িয়ে পড়েছে নীতিনির্ধারক মহলে। এতে অল্পবয়সে গর্ভধারণ বিষয়েও তাদের সচেতনতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। সম্প্রতি বিষয়টি নিয়ে যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্টেও আলোচনা হয়।
ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন এ বিষয়টিকে অত্যন্ত উদ্বেগজনক বলে বর্ণনা করেছেন। আধুনিক ব্রিটেনের জন্য এটি প্রশ্নস্বরূপ বলেও তিনি মন্তব্য করেছেন।
সূত্র: মিরর.সিও.ইউকে,টেলিগ্রাফ

You Might Also Like