যারা নিজেরা চোর তারা চোর ধরতে পারে না: কামাল

ব্যাংক লুটপাট, শেয়ার বাজার কেলেঙ্কারির কথা উল্লেখ করে গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন, “যারা নিজেরা চোর তারা চোর ধরতে পারে না। যারা ডাকাত তারা ডাকাতির বিরুদ্ধে আইন করতে পারে না।

তিনি বলেন, বর্তমানে রাষ্ট্রক্ষমতায় থাকা মানে অসৎ ব্যবসায়ী পরিচালনা করার চাবি পাওয়া।

রোববার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে নিউ জেনারেশন পার্টি (বিএনজিপি) আয়োজিত ‘পরিবারতন্ত্রের বেড়াজালে বাংলাদেশের রাজনীতি’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

সভায় সংগঠনের সভাপতি জাহিদ ইকবালের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য দেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহামুদুর রহমান মান্না, গড়ব বাংলাদেশের আহ্বায়ক ড. শাহেদা, সাংগঠনিক সম্পাদক শওকত ওয়াসীফ, প্রফেসর ড. সুকোমল বড়ুয়া প্রমুখ।

কামাল হোসেন বলেন, “দেশের নাগরিকরা ক্ষমতাসীনদের জায়গায় দায়িত্ব পালন করলে চাঁদাবাজ, দুর্নীতিবাজদের হাতে বার বার দেশকে ছেড়ে দিত না।”

এসময় তিনি দুর্নীতি ও চাঁদাবাজদের বিরুদ্ধে দেশের মানুষকে ‘না না না’ বলার অভ্যাস করারও আহ্বান জানান।

সজীব ওয়াজেদ জয় আর তারেক রহমানকে ক্ষমতায় বসানোর জন্য প্রধান দুই দলের সভানেত্রী গণতন্ত্র ভুলে পরিবারতন্ত্র প্রতিষ্ঠার পাঁয়তারা করছেন বলে মন্তব্য করেন মাহামুদুর রহমান মান্না।

মান্না বলেন, “গায়ের জোরে দুই নেত্রী তাদের ছেলেদের ক্ষমতায় বসানোর চেষ্টা করছেন। তাদের কারো মধ্যে গণতন্ত্র নেই।”

তিনি বলেন, “খালেদা জিয়া ভ্যানিটি ব্যাগ আর হাসিনা সমাবেশ ডেকে কিছু না বলে পরবর্তী সময়ে ছাত্রদের কমিটি দেবে জানিয়ে পা-চাটা অছাত্রদের নির্বাচিত করেন।”

মান্না বলেন, “২৫ বছর ডাকসু নির্বাচন হয়নি। তাদের আর তোফায়েল, মতিয়ার মতো নেতার প্রয়োজন নেই। তাই ছাত্রদের মেধাশূন্য করার জন্য কোনো নির্বাচন দেয় না।”

ড. শাহেদা বলেন, “ভুল পররাষ্ট্রনীতির কারণে বিদেশিরা দেশের রাজনীতিতে হস্তক্ষেপ করছে। আর দুর্বল স্বরাষ্ট্রনীতির কারণে দুর্নীতিবাজ ব্যবসায়ীরা রাজনীতিতে ঢুকে পড়ছে।”

বিএনপি আন্দোলনের নামে দেশের জনগণকে ধোঁকা দিচ্ছে বলেও মনে করেন বিএনপির সাবেক এই নেত্রী।

You Might Also Like