যশোরে ভাইকে বেঁধে বোনকে গণধর্ষণ, গ্রেপ্তার ১

যশোর শার্শায় ভাইকে বেঁধে রেখে তার সামনে বোনকে গণধর্ষণ করেছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

গতকাল বুধবার রাত ১০টার দিকে উপজেলার সীমান্তবর্তী গোগা ইউনিয়নের রুদ্রপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

গ্রেপ্তার আজগার আলীর সঙ্গে পূর্বপরিচয়ের সূত্র ধরে ওই নারী তার ভাইকে সঙ্গে করে রুদ্রপুর গ্রামে আম কিনতে এসেছিলেন।

শার্শা থানার ওসি ইনামুল হক খবরের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, শার্শার রুদ্রপুর গ্রামের জিয়াদ আলীর ছেলে আজগার আলী (৪০) বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার ওই নারীর কাছে ফেন্সিডিল বিক্রির টাকা পেতেন।

ওই টাকা আদায় করতে না পেরে কৌশলে আম বিক্রির কথা বলে তাকে বাড়িতে ডেকে আনেন। ওই নারী ভাইকে সঙ্গে নিয়ে আজগার আলীর বাড়িতে আসেন।

আম কেনার কথা বলে বুধবার রাতে ওই নারী ও তার ভাইকে পাশের স্কুলের মাঠে নিয়ে যায় আজগার আলী। মাঠে পৌঁছলে ভাইকে হাত-মুখ বেঁধে রেখে আজগর ও তার সঙ্গীরা। এরপর আজগর, শহীদ ও সোহেল ওই নারীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে।

বৃহস্পতিবার ভোরে ভাই-বোনকে ভয় দেখিয়ে বরিশালের বাসে উঠিয়ে দিতে শার্শার উলাশী বাজারে নিয়ে আসে আজগর ও তার সঙ্গীরা। দ্রুত স্থান ত্যাগ না করলে পুনরায় অপহরণ করে ধর্ষণ করা হবে বলেও হুমকি দেয় তারা।

এ সময় নির্যাতিত ওই নারী ও তার ভাই চিৎকার দিলে স্থানীয়রা ঘটনাস্থলে ছুটে আসে। তবে ধর্ষকরা পালিয়ে যায়। বিষয়টি থানায় জানালে অভিযান চালিয়ে আজগারকে আটক করা হয়। আর নির্যাতিতা নারী ও তার ভাইকে উদ্ধার করে থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে।

ওসি জানান, ওই ঘটনায় শার্শা থানায় একটি মামলা হয়েছে। আজগারকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে থানায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। দুপুরে ওই নারীর জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়েছে।

এছাড়া ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য তাকে আদালতের মাধ্যমে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অন্য দুজনকে গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলেও জানান ওসি।

উল্লেখ্য, ২০১৪ সালের ২১ অক্টোবর শার্শার নাভারন-সাতক্ষীরা সড়কের কুচেমোড়া এলাকায় ভাইকে বেঁধে রেখে বোনকে গণধর্ষণের আরেকটি ঘটনা ঘটেছিল।

You Might Also Like