যমজ সন্তানকে হত্যার পর মায়ের আত্মহত্যার চেষ্টা!

বরিশালের বাবুগঞ্জে তিন বছর বয়সী যমজ দুই কন্যাশিশুকে হত্যার পর মা শারমিন বেগম আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন।

শনিবার দুপুরে বাবুগঞ্জ উপজেলার দক্ষিণ ভুতেরদিয়া গ্রাম এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। নিহত হতভাগ্য শিশুরা হল আয়েশা সিদ্দিকা (৩) ও মরিয়ম আক্তার (৩)।

এদিকে নদীতে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টাকারী মা শারমিন বেগমকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। সে সেখানে আটক অবস্থায় চিকিৎসাধীন আছেন বলে জানিয়েছেন বাবুগঞ্জ থানার এএসআই শওকত জামিল।

তিনি বলেন, শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে দাদির কাছে বসে খেলছিল উপজেলার দক্ষিণ ভুতেরদিয়া গ্রামের সেলিম খানের যমজ কন্যাশিশু আয়েশা ও মরিয়ম।

এ সময় তাদের মা শারমিন ঘুরতে যাওয়া কথা বলে দাদির কাছ থেকে বাচ্চা দুটিকে নিয়ে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান।

তিনি বাড়ি থেকে কিছুদূরে একটি নির্জন জঙ্গলে নিয়ে তার যমজ দুই কন্যাশিশুকে নিজের পরনের শাড়ি তাদের গলায় পেঁচিয়ে একে একে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে।

এরপর তিনি নিজেও আত্মহত্যার জন্য ভুতেরদিয়া খেয়াঘাটের অদূরে সুগন্ধা নদীতে ঝাঁপিয়ে পড়েন।

এ সময় স্থানীয় এক নারী দূর থেকে তার এই কাণ্ড দেখে চিৎকার দিলে স্থানীয়রা এসে তাকে নদী থেকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান।

এ সময় বাগানে পড়ে থাকা তার দুই শিশুকন্যার নিথর দেহ তুলে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত শিশুদের বাবা ভুতেরদিয়া খেয়াঘাটের চায়ের দোকানী সেলিম খান জানান, তার স্ত্রী শারমিন বেগম কিছুটা মানসিক ভারসাম্যহীন।

বাবুগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহ আলম জানান, হাসপাতালে বসেও কিছুটা অস্বাভাবিক আচরণ ও অসংলগ্ন কথাবার্তা বলেছেন ঘাতক মা শারমিন বেগম। তাকে গ্রেফতার করে বর্তমানে পুলিশ হেফাজতে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

You Might Also Like