যত সাজাই হোক, মাথা নত করবে না বিএনপি: ফখরুল

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, যত সাজাই হোক, মাথা নত করবে না বিএনপি। জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠা করা হবে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে ঢাকার গুলিস্তানের মহানগর নাট্যমঞ্চে গণ–অনশন কর্মসূচিতে তিনি এসব কথা বলেন। গণ–অনশন কর্মসূচি বেলা ১০টা থেকে তিনটা পর্যন্ত চলে।

তিনি বলেন, ‘আসুন আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ হই। ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মধ্য দিয়ে এই সরকারকে পরাজিত করবো। আমরা মাথা নত করবো না।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘বন্ধুগণ আমরা মাথা নত করবো না। আমরা নিজেদের অধিকারের আন্দোলন ও লড়াইয়ের মধ্য দিয়ে তা আদায় করবো। আমাদের বেঁচে থাকার অধিকার, ১৯৭১ সালের যে চেতনা নিয়ে স্বাধীনতার যুদ্ধ করেছিলাম সেই অধিকার আমরা প্রতিষ্ঠা করবোই করবো।’

রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে খালেদা জিয়াকে কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন বিএনপি মহাসচিব। তিনি বলেন, ‘সরকারের নিয়ন্ত্রণে এখন বিচার ব্যবস্থা চলছে। তার প্রমাণ গত দুই দিনে খালেদা জিয়ার মামলার রায় হয়ে গেছে। সরকার প্রতিটি প্রতিষ্ঠান ধ্বংস করে দিয়েছে। দেশের বিচার ও প্রশাসন ব্যবস্থাকেও তারা ধ্বংস করে দিয়েছে। আজকে দেশ আর গণতান্ত্রিক দেশ নেই, স্বৈরতান্ত্রিক দেশে পরিণত হয়েছে।’

গণতন্ত্রের সঙ্গে খালেদা জিয়া ওতপ্রতোভাবে জড়িয়ে আছেন দাবি করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘গণতন্ত্র মানেই খালেদা জিয়া। তাই আজকে তার মুক্তির দাবিতে অনশন করছি। দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে যখন বলা হলো- আপনার সাজা বৃদ্ধি পেয়েছে, তখন তিনি বলেছিলেন তারা যত সাজা দিতে চায় দিক, আমি মাথা নত করবো না।’

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দুটি মামলায় সাজার রায়ের প্রতিবাদে ঢাকার গুলিস্তানের মহানগর নাট্যমঞ্চে কর্মসূচি পালন করছেন দলটির নেতা-কর্মীরা।

নাট্যমঞ্চের প্রবেশপথে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা দুই স্তরে চেয়ারে বসে এবং কর্মীরা সামনের অংশে কার্পেটে বসে গণ–অনশন কর্মসূচি পালন করছেন।

বিএনপির এই কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে সকাল থেকে মহানগর নাট্যমঞ্চের আশপাশে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

সম্প্রতি মহানগর নাট্যমঞ্চে কেন্দ্রীয় ১৪ দলের সমাবেশে নেতা-কর্মীদের কোনো ধরনের ব্যাগ নিয়ে প্রবেশ করতে দেয়নি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। তবে আজ বিএনপির কর্মসূচিতে পুলিশকে কোনো ধরনের নিরাপত্তা তল্লাশি করতে দেখা যায়নি।

একই দাবিতে গতকাল বুধবার ঢাকার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন করে বিএনপি। যদিও কর্মসূচি শেষের আগেই বিএনপির নেতা-কর্মীরা গ্রেপ্তার–আতঙ্কে কর্মসূচিস্থল ত্যাগ করেন।

গত মঙ্গলবার জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার আপিলের রায়ে খালেদা জিয়ার সাজা পাঁচ বছর থেকে বাড়িয়ে ১০ বছর করেন হাইকোর্ট। এদিনই বিএনপি তিন দিনের প্রতিবাদ কর্মসূচি ঘোষণা করে। আজ কর্মসূচির দ্বিতীয় দিন।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ভাইস চেয়ারম্যান এ জেড এম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমানউল্লাহ আমান, জয়নুল আবদীন, আতাউর রহমান ঢালী, কেন্দ্রীয় নেতা ফজলুল হক মিলন, শহীদ উদ্দিন চৌধুরীসহ দলে অঙ্গ-সংগঠনের নেতারা কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছেন।

You Might Also Like