মোগাদিসুতে জঙ্গি হামলায় নিহত ১৮

সোমালিয়ার রাজধানী মোগাদিসুর একটি হোটেল ও তৎসংলগ্ন একটি রেস্তোরাঁয় আত্মঘাতী গাড়িবোমা ও বন্দুক হামলায় অন্তত ১৮ জন নিহত হয়েছে।বুধবার রাতে এক আত্মঘাতী হামলাকারী দক্ষিণ মোগাদিসুর পশ হোটেলের প্রবেশ পথে গাড়িবোমা বিস্ফোরণ ঘটায়। এর পরই একদল বন্দুকধারী জঙ্গি হোটেল সংলগ্ন পিজা হাউজ রেস্তোরাঁয় হামলা চালিয়ে ২০ জনকে জিম্মি করে।

নিরাপত্তা বাহিনীর কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বুধবার রাতে আত্মঘাতী হামলাকারী বিস্ফোরকভর্তি একটি গাড়ি হোটেলের প্রবেশমুখে নিয়ে বিস্ফোরণ ঘটায়। এ ঘটনায় নারীসহ নিহত হয়েছে নয়জন। হামলার পর ওই হোটেল থেকে আটকে পড়াদের উদ্ধার করা হয়েছে।

হামলার পর আল-শাবাবের পক্ষ থেকে দায় স্বীকার করে বলা হয়েছে, ‘এক যোদ্ধা পশ হোটেল, যেটি ছিল নাইটক্লাব তার ভেতরে গাড়িবোমা হামলা চালিয়ে শহীদ হয়েছে। অভিযান চলছে।’

এদিকে এই হামলার পর জঙ্গিরা পশ হোটেল সংলগ্ন পিজা হাউজ নামে একটি রেস্তোরাঁর প্রবেশমুখে বিস্ফোরকভর্তি একটি গাড়ি পার্ক করে। পরে তারা হোটেলের ভিতরে প্রবেশ করে প্রায় ২০জন লোককে জিম্মি করে।

পুলিশ কর্মকর্তা ইব্রাহিম হুসেইন রাতে জানিয়েছিলেন, ‘জঙ্গিরা ২০জনেরও বেশি লোককে জিম্মি করে রেখেছে। আমরা জানি না তাদের মধ্যে কতোজন জীবিত বা মৃত রয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘পিজা হাউজের সামনে একটি গাড়িবোমা পার্ক করে রাখা হয়েছে। এটি এবং স্নাইপারদের কারণে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের ভেতরে প্রবেশ মুশকিল হয়ে পড়েছে।’

বৃহস্পতিবার পুলিশ কর্মকর্তা আব্দি বশির জানিয়েছেন, বুধবার মধ্যরাতে পিজা হাউজে অভিযান চালায় নিরাপত্তা বাহিনী। অভিযানে পাঁচ বন্দুকধারী নিহত হয়েছে।

সোমালিয়ার নিরাপত্তা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মোহাম্মদ আহমেদ আরব বলেছেন, ‘অভিযান সমাপ্ত হয়েছে এবং বন্দুকধারীরা নিরাপত্তার বাহিনীর হাতে নিহত হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘১৮ বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে, যাদের মধ্যে একজন সিরীয় রয়েছেন। এছাড়া আরো প্রায় ১০ জন আহত হয়েছে।

You Might Also Like