মুখোশপরা ব্যক্তিকে চিহ্নিত করবে ‘সিগমাইন্ড’

করোনাভাইরাসের কারণে কোয়ারেন্টাইন বা আইসোলেশনে থাকা মুখোশপরা ব্যক্তিকে চিহ্নিত করতে কাজ করবে বাংলাদেশি কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা প্রযুক্তিভিত্তিক প্রতিষ্ঠান সিগমাইন্ড।

সোমবার (০৬ এপ্রিল) দুপুরে প্রতিষ্ঠানটির গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বর্তমান সময়ে বিশ্বজুড়ে কোভিড-১৯ ছড়িয়ে পড়ায় সাধারণ ফেস রিকগনিশন প্রযুক্তিগুলো মুখোশ পরিহিত মুখমণ্ডল শনাক্তে কার্যত অকার্যকর হয়ে পড়েছে। তাই কোয়ারেন্টাইন বা আইসোলেশনে থাকা ব্যক্তিরা মুখোশপরে ঘোরাফেরা করলে সার্ভিলেন্স ক্যামেরায় তাদেরকে শনাক্ত করা রীতিমতো অসম্ভব হয়ে পড়েছে।

তাই এই সমস্যার সমাধানে বাংলাদেশি কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা প্রযুক্তিভিত্তিক প্রতিষ্ঠান সিগমাইন্ড তাদের ওয়াচক্যাম ম্যাস সার্ভিলেন্স সিস্টেমে সংযোজন করেছে মুখোশ উন্মোচন করার প্রযুক্তি, যা সিসিটিভি ক্যামেরা থেকে স্বয়ংক্রিয়ভাবেই কাজ করতে পারে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, করোনাভাইরাস প্রতিরোধে এই মুহূর্তে দরকার সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা এবং জন্য সংস্পর্শ এড়িয়ে চলা। দেশের বিপুল সংখ্যক মানুষকে নিয়ন্ত্রণের জন্য দায়িত্বপ্রাপ্ত সংস্থার ব্যক্তিদের পক্ষে দীর্ঘ সময় রাস্তায় নেমে নজরদারি করা সম্ভব নয়। সবাই মুখোশ পড়ছে কিনা সেটি নিশ্চিত করার জন্য জনবল নিয়োগ করাও অনেক কষ্টসাধ্য ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায়। এক্ষেত্রে অটোমেশনই ভরসা। আর এই পূর্ণ অটোমেশন এর সমাধান দিচ্ছে সিগমাইন্ড-এর ওয়াচক্যাম ম্যাস সার্ভিলেন্স সিস্টেম।

এ বিষযয়ে সিগমাইন্ড এর চেয়ারম্যান আবু আনাস শুভম বলেন, মুখোশ পরিহিত ব্যক্তি শনাক্তে প্রযুক্তি নিয়ে আমরা কাজ শুরু করেছিলাম গত বছর থেকে। সেটা যে এত তাড়াতাড়ি এভাবে প্রয়োজন হয়ে পড়বে তা ভাবিনি। বর্তমানে আমাদের প্রযুক্তিটি কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ব্যবহার করে ৮৭ দশমিক ৩ শতাংশ অ‌্যাকুরেসিতে মুখোশ পরিহিত এবং ৯৯ দশমিক ৪ শতাংশ অ‌্যাকুরেসিতে মুখোশ ছাড়া ব্যক্তিকে শনাক্ত করতে পারে।

সিগমাইন্ড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভির তাবাসসুম বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে সব দেশের সরকারই চাইছে নাগরিকদের আরো কঠোরভাবে নজরদারি করতে, যা আমাদের এই প্রযুক্তি সুবিধা ব্যবহার করে সহজেই করা সম্ভব।

You Might Also Like