মিয়ানমারে হাজার রোহিঙ্গা নিহতের আশঙ্কা

মিয়ানমারে সেনাবাহিনীর দমনাভিযানে এক হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গা মুসলিম নিহত হয়ে থাকতে পারে| দেশটি থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা শরণার্থীদের নিয়ে কাজ করছেন জাতিসংঘের এমন দুই ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এই আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন। বৃহস্পতিবার ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

বাংলাদেশে কাজ করা জাতিসংঘের দুটি পৃথক সংস্থার ওই দুই কর্মকর্তা উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছেন, আগের প্রকাশিত পরিসংখ্যানের চেয়ে রোহিঙ্গা নিহতের সংখ্যা অনেক বেশি । মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সংকটের যে চিত্র উদঘাটিত হচ্ছে তার ভয়াবহতা বহির্বিশ্ব পুরোপুরি অনুধাবন করতে পারেনি।

গত বছরের অক্টোবরে সীমান্ত পুলিশ চৌকিতে হামলাকে কেন্দ্র করে রোহিঙ্গা দমন অভিযানে নামে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। ওই সময় বলা হয়েছিল, সেনা অভিযানে শতাধিক রোহিঙ্গা নিহত হয়েছে। সেনাদের নির্যাতন ও হত্যা থেকে রেহাই পেতে গত কয়েক মাসে দেশটি থেকে প্রায় ৭০ হাজার রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে জাতিসংঘের এই দু্ই কর্মকর্তার একজন বলেছন, ‘এখন পর্যন্ত শতাধিক মৃত্যুর কথা বলা হচ্ছে। এটি সম্ভবত কম করেই বলা হচ্ছে- আমরা হয়ত কয়েক হাজারের দিকে তাকাতে পারি।’

পৃথক সাক্ষাৎকারে দুই কর্মকর্তাই জানিয়েছেন, গত চার মাসে তাদের সংস্থাগুলো শরণার্থীদের যেসব সাক্ষ্য জোগাড় করেছে তা থেকে মৃতের সংখ্যা হাজার ছাড়িয়ে যাবে বলে ধারণা পাওয়া যাচ্ছে।

মিয়ানমারের প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র জাও হতাই অবশ্য বলেছেন, সামরিক কমান্ডারদের সর্বশেষ প্রতিবেদন অনুযায়ী, অক্টোবরে যারা সীমান্ত পুলিশের চৌকিতে হামলা চালিয়েছিল সেই রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের বিদ্রোহ দমনাভিযানে একশরও কম মানুষ নিহত হয়েছে।

জাতিসংঘের কর্মকর্তারা নিহতের সংখ্যা এক হাজার ছাড়িয়ে যেতে পারে বলছেন সে বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে হতাই বলেন, ‘তাদের সংখ্যা আমাদের চেয়ে অনেক বেশি। ঘটনাস্থলে গিয়ে বিষয়টি আমাদের খতিয়ে দেখতে হবে।’

You Might Also Like